মুখের ত্বকের যত্ন নিতে কখনও ভুল হয় না, কিন্তু শরীরের বাকি অংশের কি প্রতিও সমান যত্নশীল আপনি? নাকি বাহুমূলের কালো ছোপের কারণে স্লিভলেস পোশাক পরতেই সংকোচ হয় আপনার? ত্বকের উপর মৃত কোষ জমা, আর্দ্রতার অভাব, রোদজনিত ক্ষতির মতো নানা কারণেবাহুমূলে কালো ছোপ পড়ে। রইল এমন কিছু ঘরোয়া টোটকার হদিশ যা দিয়ে অনায়াসেই মুছে ফেলতে পারবেন বাহুমূলের কালো ছোপ, স্লিভলেস পোশাক পরতেও আর অস্বস্তি হবে না!

আপেল
বাড়িতে আপেল পড়ে থেকে থেকে বেশি পেকে গেছে? খানিকটা থেঁতো করে চটকে বাহুমূলের কালো ছোপ ধরা অংশে লাগান। কালো দাগ উঠে যাবে, দুর্গন্ধও কমবে।

চন্দন
দু’ চাচামচ গোলাপজলের সঙ্গে দু’ চাচামচ চন্দনগুঁড়ো মেশান। এই মিশ্রণটা বাহুমূলে লাগিয়ে পাঁচ মিনিট রেখে জলে ধুয়ে ফেলুন। পর পর কয়েকদিন করলে উপকার পাবেন।

মধু
সমপরিমাণে পাতিলেবুর রস আর মধু মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটা বাহুমূলে লাগিয়ে দশ মিনিট রাখুন, তারপর গরম জলে ধুয়ে ফেলুন। এই পদ্ধতিটা রোজ করতে পারলে সমস্ত কালো ছোপ উঠে যাবে।

নারকেল তেল
কয়েক ফোঁটা নারকেল তেল বাহুমূলে 15 মিনিট মাসাজ করুন। তারপর ধুয়ে ফেলুন।

কমলালেবুর খোসা
কমলালেবুর খোসা তিন-চারদিন রোদে রেখে শুকিয়ে ফেলুন। শুকনো লেবুর খোসাগুলো গ্রাইন্ডারে দিয়ে মিহি করে গুঁড়ো করে নিন। ওই গুঁড়োয় পরিমাণমতো গোলাপজল মেশান, একটা পেস্টের মতো জিনিস তৈরি হবে। বাহুমূলে এই পেস্টটা লাগিয়ে 10 মিনিট রাখুন, তারপর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

লেবু
লেবুর রসে ভিটামিন সি আর প্রাকৃতিক ব্লিচিং এজেন্ট রয়েছে। লেবু চাকা করে কেটে নিয়ে বাহুমূলে ঘষুন অথবা রসটা তুলোয় করে লাগান।

বেসন আর দই
ত্বকের উপরিভাগ থেকে মৃত কোষ দূর করার জন্য এক্সফোলিয়েটর হিসেবে দারুণ কাজ করে বেসন, এবং একই সঙ্গে ত্বকের কালচে ছোপও মুছে দিতে পারে। দইয়ের ল্যাকটিক অ্যাসিড ত্বক নরম আর আর্দ্র রাখে। বেসন আর টক দই একসঙ্গে মিশিয়ে লেই করে নিন। পাতলা করে বাহুমূলে মাস্কের মতো লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে হালকা গরম জলে ধুয়ে ফেলবেন।
-ফেমিনা

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য