আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধাঃ গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার নাকাইহাট ইউনিয়নে নলেয়া নদীর উপর আমিনের ঘাটে দীর্ঘদিন যাবত সেতু নির্মাণের কোন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি। ৮০ ফুট দৈর্ঘ্য একটি জরাজীর্ণ কাঠের সেতুর উপর দিয়েই ঝুঁকি নিয়েই জনগণকে পথ চলাচল করতে হচ্ছে। এই কাঠের সেতুতে কোন যানবাহন চলাচল করতে পারে না বলে মালামাল পরিবহনেও এলাকাবাসিদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

নাকাইহাট ইউনিয়নের পুরানদহ গ্রামসহ পার্শ্ববর্তী গ্রামগুলোর মানুষের চলাচলের একমাত্র ভরসাই এই কাঠের সেতু। এব্যাপারে গাইবান্ধা-৪ (গোবিন্দগঞ্জ) আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য, উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে এলাকাবাসির পক্ষ থেকে একটি ব্রীজ নির্মাণের জন্য দাবি জানানো হলেও এখন পর্যন্ত তা বাস্তবায়িত হয়নি।

পুরানদহ গ্রামের মেঘারচর পাড়ার গ্রামের বাসিন্দারা জানান, জরাজীর্ণ কাঠের সেতুটি পারাপারে বেশি সমস্যায় পড়তে হয় স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থী, বয়স্ক মানুষ ও শিশুদের। এই প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে নিয়মিত গোবিন্দগঞ্জের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাতায়াত করে থাকে এতদঞ্চলের শিক্ষার্থীরা।

তদুপরি উপজেলা সদরের ব্যবসা-বাণিজ্য, হাট-বাজার, চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে যাতায়াত, মামলা মোকদ্দমাসহ নিত্য প্রয়োজনীয় যেকোনো কাজে এই সেতুর উপর দিয়েই নলেয়া নদীর এ পাড়ের মানুষদের যেতে হয় উপজেলা সদরে। রিক্সা-ভ্যানসহ হালকা যানবাহন তো দূরের কথা পায়ে হেঁটে ঝুঁকিপূর্ণভাবে সেতুটি পার হতে হয় বলে জানালেন এলাকার ভূক্তভোগী মানুষগুলো।

এ বিষয়ে নাকাইহাট ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের জানান, এলাকার মানুষের চলাচলের এ দুর্ভোগ দীর্ঘদিনের। প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ না পাওয়ায় নলেয়া নদীর উপর ব্রিজ-সেতু নির্মাণ করা সম্ভব হয়নি। তবে এলাকাবাসীর দাবির মুখে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে ২০১৭ সালে আমিনের ঘাটে কাঠের এই সেতুটি নির্মিত হয়।

এ প্রসঙ্গে জাতীয় সংসদ সুত্রে জানা গেছে, আমিনের ঘাটে নলেয়া নদীর উপর কাঠের সেতু নির্মাণের জন্য প্রাক্কলন তৈরী করে অনুমোদনের জন্য মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। স্বল্প সময়ের মধ্যে সেতুটি নির্মাণের কাজ শুরু হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য