জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) সংবাদদাতা ॥ নীলফামারীর সৈয়দপুর শহরের ঐতিহ্যবাহী রেলওয়ে মাঠে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ৩ ক্রিকেট জুয়ারী ও ৩ মাদকসেবীকে আটক করেছে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট পরিমল কুমার সরকার। ২ জুন রাত ৯ টার দিকে অভিযান শেষে তাদের ভ্রাম্যমান আদালতে পৃথক পৃথক মেয়াদে দন্ড প্রদান করা হয়েছে।

জানা যায়, ক্রিকেট খেলাকে ঘিরে সৈয়দপুর শহরের বিভিন্ন স্থানে মোবাইলে জুয়া খেলার ব্যাপক প্রচলন রয়েছে। চলমান বিশ^কাপ ক্রিকেট নিয়েও শুরু হয়েছে মোবাইল জুয়া। এতদিন এ জুয়ার সবচেয়ে বড় আসর বসতো রেলওয়ে বাজার ও সিনেমা রোডের মধ্যস্থলে সৈয়দপুর-পার্বতীপুর রেলওয়ে লাইনে।

প্রশাসনের বিশেষ উদ্যোগের কারণে সে স্থান থেকে ক্রিকেট জুয়ার আসর বন্ধ করা গেলেও সম্প্রতি রেলওয়ে মাঠে জুয়ারীরা সমবেত হয়ে জুয়া খেলায় মেতে উঠেছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে আজ বাংলাদেশ ও ভারতে মধ্যের ক্রিকেট খেলার সময় রেলওয়ে মাঠে অভিযান পরিচালনা করেন সৈয়দপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট পরিমল কুমার সরকার।

অভিযান কালে অন্ধকারের মধ্যে ফাঁকা মাঠে অনেক জুয়ারী পালিয়ে গেলেও ৩ জনকে আটক করা হয়। সে সাথে মাঠে অবস্থানকারী ৩ জন মাদকসেবীকেও গাঁজা ও নেশা জাতীয় ট্যাবলেট সহ আটক করা হয়। এদের মধ্যে মাদক সেবনের দায়ে শহরের গোলাহাট চিনি মসজিদ সংলগ্ন দিলীপ কুমার চক্রবর্তী ও সাবেক সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর সাবিত্রী চক্রবর্তীর ছেলে সাগর চক্রবর্তী (২৩) কে ৬ মাসের, রসুলপুর এলাকার নুর ইসলামের ছেলে আতিক হোসেন (২১) কে ১ মাস এবং চিনি মসজিদ এলাকার ফরিদ আহমেদ এর ছেলে ফাহাদ ফরিদ (২২) কে ৭ দিনের কারাদন্ড প্রদান করা হয়।

ক্রিকেট জুয়ার সাথে জড়িত থাকার কারণে শহরের গোলাহাট এলাকার মাহামুদুল আল ফারুক এর ছেলে মাহামুদুল হাসান (২২), শহীদ তুলশীরাম সড়কের সুব্রত ঘোষের ছেলে রনক ঘোষ সাব্বির (২৬) ও গোলাহাটের জামান মিয়ার ছেলে শাওন (২৩) প্রত্যেককে ৭ দিন করে সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যাজিষ্ট্রেট পরিমল কুমার সরকার।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য