মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের নীতির কারণেই পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে ২০১৫ সালের পরমাণু সমঝোতার কিছু ধারা বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতি থেকে ইরান সরে এসেছে বলে মনে করছে চীন। বহুপক্ষীয় পরমাণু সমঝোতা থেকে ট্রাম্প গত বছর আমেরিকাকে বের করে নেন।

চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র গেং শোয়াং আজ (মঙ্গলবার) রাজধানী বেইজিংয়ে নিয়মিত সংবাদ ব্রিফিংয়ে বলেন, “আমরা এর আগে বহুবার বলেছি যে আমেরিকার সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের নীতিই বর্তমান সংকটের মুল কারণ।” বার্তা সংস্থা এএফপি এ খবর দিয়েছে।

গেং বলেন, পরমাণু সমঝোতা বিষয়ে ইরান যে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে তাতে দুঃখ প্রকাশ করছে চীন। তবে একইসঙ্গে চীন মনে করে পরিস্থিতি যাতে আরো অবনতির দিকে না যায় সেজন্য সব পক্ষকে দীর্ঘ মেয়াদি দৃষ্টিভঙ্গি পোষণের মাধ্যমে ধৈর্য ধরার পাশাপাশি পরমাণু সমঝোতা পুরোপুরি বাস্তবায়নের ওপর গুরুত্ব দিতে হবে। চীনসহ রাশিয়া, ফ্রান্স ব্রিটেন এবং জার্মানি ইরানের সঙ্গে পরমাণু সমঝোতায় সই করেছে।

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ গতকাল জানান, তার দেশ সমৃদ্ধ ইউরেনিয়াম মুজদের সীমা বাড়িয়েছে। ২০১৫ সালে সই হওয়া পরমাণু সমঝোতার ২৬ ও ৩৬ নম্বর ধারা অনুসারে ইরান এ পদক্ষেপ নিয়েছে। ওই ধারায় বলা হয়েছে, ইরান ৩০০ কেজি পর্যন্ত সমৃদ্ধ ইউরেনিয়াম মজুদ করতে পারবে তবে ছয় জাতিগোষ্ঠীর কোনো পক্ষ চুক্তি লঙ্ঘন করল ইরান সে সীমা মানতে বাধ্য থাকবে না।

পার্সটুডে

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য