ভারতের পুনেতে একটি অ্যাপার্টমেন্ট ভবনের পাশের দেয়াল ধসে পড়ে চার শিশু ও এক নারীসহ অন্তত ১৫জন নিহত হয়েছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

ভারী বৃষ্টিপাতের পর শনিবার পুনের কোন্ধোয়া এলাকায় এ দেয়াল ধসের ঘটনা ঘটে বলে এনডিটিভি জানিয়েছে।

আহতদের কাছাকাছি একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অ্যাপার্টমেন্ট ভবনের সীমানা দেয়ালটির লাগোয়া নিচের দিকে বেশ কয়েকটি টিনশেডের ঘর ছিল।

বৃষ্টিতে মাটি আলগা হয়ে যাওয়ার পর দেয়ালের একাংশ ধসে গিয়ে ওই খুপড়ি ঘরগুলোর ওপর পড়লে হতাহতের ঘটনা ঘটে।

কর্মকর্তারা জানান, স্থানীয় সময় রাত ১টা ৪৫ মিনিটের দিকে দেয়ালটি ধসে পড়ার পরপরই দেশটির দুর্যোগ প্রতিক্রিয়া বাহিনী (এনডিআরএফ) ও দমকল বিভাগের উদ্ধারকর্মীরা ছুটে আসেন।

“আমাদের দল এ ঘটনার কারণ অনুসন্ধান করছে। যারা দায়ী তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ঠিকঠাক অনুমোদন নেওয়া হয়েছিল কিনা, নিরাপত্তা সতর্কতা অনুসরণ করা হচ্ছিল কিনা তা আমরা খতিয়ে দেখবো,” বলেছেন পুনের পুলিশপ্রধান কে ভেঙ্কটেশাম।

দমকল বাহিনী, পুলিশ ও এনডিআরএফ যৌথভাবে দেয়াল ধসের ঘটনার তদন্ত করছে।

“কাছাকাছি একটি প্লটে নির্মাণ কাজ চলছিল। ওই নির্মাণকাজের শ্রমিকরাই এই টিনশেডগুলোতে থাকতেন। দেয়াল ধসে এ টিনশেড ঘরগুলোর ওপর পড়ে,” বলেছেন এনডিআরএফের কর্মকর্তা সদানন্দ গৌডে।

স্থানীয় গণমাধ্যমগুলোর ছবিতে দেয়াল ধসের পর ধ্বংসস্তূপের ওপর বেশ কয়েকটি গাড়িকে কোনাকুনি অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

দেয়ালটির ভেতরের দিকে পার্ক করে রাখা এ গাড়িগুলো ধসের পর ধ্বংসস্তূপের ওপর এসে পড়ে।

বৃহস্পতিবার থেকেই পুনেতে তুমুল বর্ষণ শুরু হয়। শুক্রবার রাত পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় শহরটিতে ৭৩ দশমিক ১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে; ২০১০ সালের জুনের পর এটিই দ্বিতীয় সর্বোচ্চ।

শুক্রবার থেকে মহারাষ্ট্রে বৃষ্টিপাত সংক্রান্ত দুর্ঘটনায় অন্তত ৮ জন নিহত এবং ৫ জন আহত হয়েছে।

মুম্বাইয়ে ৪৫ বছরের মধ্যে সবচেয়ে দেরিতে আসা বর্ষার প্রথম দফা বর্ষণেই তিনজন নিহত এবং ৫ জন আহত হয়েছে বলে এনডিটিভি জানিয়েছে।

শনিবার সকালে মুম্বাইয়ের চেম্বুরে একটি অটোরিকশার ওপর দেয়াল ধসে পড়লেও এ ঘটনায় হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য