জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) সংবাদদাতা ॥ নীলফামারীর সৈয়দপুরে পিকআপের ধাক্কায় রহমত উল্লা (৬৫) ও তুরাগ (২) নামে দুইজন নিহত হয়েছে। নিহতরা সম্পর্কে দাদা-নাতি। বুধবার (২৬ জুন) সকাল ৮টার দিকে সৈয়দপুর- নীলফামারী সড়কের ওয়াপদা নয়া হাটে ওই দুর্ঘটনা ঘটে। এ সময় স্থানীয় জনতা চালকসহ পিকআপটিকে আটক করে পুলিশের হাতে সোপার্দ করে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ঘটনার সময় নয়া হাটের বাসিন্দা পিডিবির অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারী রহমত উল্ল্যা নাতি তুরাগকে নিয়ে সড়কের পাশ দিয়ে হাঁটছিলেন। এ সময় নীলফামারীগামী খালি পিকআপটি দাদা- নাতিকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় জনতার হাতে আটক হয়। ঘটনাস্থলে মারা যান রহমত উল্ল্যা এবং গুরুতর আহত শিশু তুরাগ রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর মারা যায়।

এ ঘটনায় ওয়াপদা নতুনহাট এলাকাবাসী সৈয়দপুর-নীলফামারী সড়ক অবরোধ করে রাখে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সৈয়দপুর সার্কেল) অশোক কুমার পালের আশ্বাসের প্রেক্ষিতে অবরোধ তুলে নেয়।

সূত্রটি জানায়, আটক চালক সৈয়দপুর পৌর এলাকার কয়া গোলাহাট সরকার পাড়ার মঞ্জুর আলীর ছেলে মো. রিমন (১৭) এবং হেলপার একই এলাকার মো. সাবেদ আলীর ছেলে মো. আবু রায়হান (১৬)।

সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহজাহান পাশা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, চালকের বৈধ কাগজপত্র দেখাতে পারেনি আটক পিকআপ ভ্যানের চালক রিমন।

উল্লেখ্য, সৈয়দপুর শহরের এই ওয়াপদা নতুন হাট এলাকায় গত এক মাসে প্রায় ৫টি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে। এতে ৫ জন নিহত হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য