আফগানিস্তানে দুই মার্কিন সেনা নিহত হয়েছে বলে দেশটিতে মোতায়েন নেটো মিশন জানিয়েছে।

নেটো মিশনের বিবৃতিতে বুধবার তাদের নিহত হওয়ার কথা জানানো হলেও তারা কোথায়, কীভাবে নিহত হয়েছেন তা বিস্তারিত জানানো হয়নি, জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

এদের নিয়ে চলতি বছর আফগানিস্তানে নিহত মার্কিন সেনার সংখ্যা অন্তত ছয়ে দাঁড়ালো আর ২০১৫-র জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত নিহত মার্কিন সেনার সংখ্যা দাড়ালো অন্তত ৬৫ জনে।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর কাবুলে সফরের ২৪ ঘণ্টারও কম সময়ের মধ্যে এ দুজন মার্কিন সেনা নিহত হলেন। পম্পেও কাবুল সফর করলেও তা ঘোষণা করা হয়নি। সফরে তিনি আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি ও দেশটির জ্যেষ্ঠ রাজনীতিকদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন।

এ সময় পম্পেও জানিয়েছেন, আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগেই ১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে তালেবানের সঙ্গে শান্তি চুক্তি হয়ে যাবে বলে তিনি আশা করছেন।

১৮ বছর ধরে চলা আফগান যুদ্ধ অবসানে ২৯ জুন তালেবান কর্মকর্তা ও যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের মধ্যে সপ্তম পর্বের শান্তি আলোচনা শুরু হওয়ার কথা রয়েছে।

আলোচনায় উভয়পক্ষ তালেবান ও যুক্তরাষ্ট্রে দাবিগুলো বিবেচনায় নিবে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে। আফগানিস্তান থেকে বিদেশি সব সেনার প্রত্যাহার চায় তালেবান, অপরদিকে যুক্তরাষ্ট্র চায় আফগানিস্তানের ভূমি ব্যবহার করে জঙ্গি হামলা চালানো বন্ধ হোক।

নেটো মিশনের অংশ হিসেবে বর্তমানে প্রায় ২০ হাজার বিদেশি সেনা আফগানিস্তানে মোতায়েন আছে। এদের বেশিরভাগই মার্কিন সামরিক বাহিনীর সদস্য। কিছু মার্কিন সেনা সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানে অংশ নিলেও বিদেশি সেনাদের অধিকাংশই আফগান বাহিনীগুলোর প্রশিক্ষণ, পরামর্শ ও তাদের সহায়তা করার বিষয়গুলো দেখভাল করে।

ফেব্রুয়ারিতে দেওয়া এক প্রতিবেদনে জাতিসংঘ জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন বাহিনীর বিমান হামলা ও আত্মঘাতী হামলা বৃদ্ধি পাওয়ায় গত বছর রেকর্ড ৩,৮০৪ জন বেসামরিক আফগান নিহত হয়েছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য