দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরে হত্যা মামলায় ১৯ জনকে দোষী সাব্যস্ত করে ২ জনকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদন্ড এবং ১৭জনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড ও প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ১ বছর সশ্রম কারাদন্ডে দন্ডিত করার রায় প্রদান করা হয়েছে।

আদালতের একটি সূত্রে প্রকাশ, আজ রোববার দুপুর ২টায় দিনাজপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোঃ আনোয়ারুলহক তার আদালতে এই চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলায় এজাহারনামীয় ১৯ জন আসামীকে উপরোক্ত কারাদন্ড দন্ডিত করার রায় প্রদান করেন। রায় প্রদানকালে মামলার এজাহারনামীয় ১৭ জন আসামীর উপস্থিতিতে রায় ঘোষণা করা হয়। অপর ২ জন আসামী পলাতক ছিল।

মামলার অভিযোগে প্রকাশ, গত ২০০৪ সালের ২৯ অক্টোবর দিনাজপুর জেলার বিরল থানার রতনৌর মৌজার ১টি জমি দখলকে কেন্দ্র করে ২ পক্ষের দাঙ্গার ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় রতনৌর গ্রামের আব্দুল বারী ও আব্দুল কাফী গুরুতর আহত হলে তাদেরকে উদ্ধার করে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

আহত বারী চিকিৎসাধীন অবস্থায় পরদিন ৩০ অক্টোবর রাতে মারা যায়। এই ঘটনায় নিহত বারীর বড় ভাই এ্যাডঃ আব্দুল বাকী বাদী হয়ে গত ২০০৪ সালের ৩১ অক্টোবর বিরল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। যার বিরল থানার মামলা নং- ১৯, তারিখ- ৩১/১০/২০০৪, ধারা ৩২৫, ৩০৭, ৩০২ ও ৩৪ দঃ বিঃ।

মামলাটি বিরল থানার পুলিশ তদন্ত করেন এজাহারনামীয় ১৯ জন আসামীর মধ্যে আদালতে অভিযোগপত্র পেশ করলে মামলাটি বিচারের জন্য জেলা ও দায়রা জজ আদালতের মাধ্যমে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত-৩ আদালতে প্রেরণ করেন।

মামলায় এজাহারকারী পক্ষে ১৭ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য প্রদান করা হয়। দীর্ঘ ১৫ বছর পর মামলার সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে বিচারক আজ রোববার দুপুর ২টায় মামলার রায় প্রদান করেন। অভিযুক্ত আসামীরা হলেন দিনাজপুর জেলার বিরল উপজেলার রতনৌর গ্রামের আব্দুর রহমানের পুত্র জাহাঙ্গীর আলম (৩৫), শরিফুল ইসলাম (৩৩)কে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদন্ডে রায় কার্যকর করার আদেশ প্রদান করেন।

অপর আসামী একই গ্রামের আব্দুর রহমানের পুত্র আব্দুর রাজ্জাক (৪৫), মহবুর রহমান (৪৩), মতিবুর রহমান (৪১), মতিবুর রহমানের পুত্র জাফরুল হক (২৭),আব্দুর রহমান (৬৫), নুর নেহার (৬০), সুরাতুন নেছা (৫৫), রাসেল হক (৩০), গোলাম রব্বানী (৩৫), আব্দুস সামাদ (৪০), নাজমুল হক (৪২), মল্লিকা বেগম (৩২), রোস্তম আলী (৩৩), তাজুন নাহার (৩০), কুলসুমা খাতুন (৩৮)কে দোষী সাব্যস্ত করে প্রত্যেককে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড এবং তৎসহ প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে ১ বছর বিনাসশ্রম কারাদন্ডে দন্ডিত করা হয়।

পলাতক ২ আসামী আনিসুর রহমান (৪০) ও আকলিমা খাতুন (৩৫)কে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ১ বছর বিনাশ্রম কারাদন্ডে দন্ডিত করা হয়। পলাতক ২ আসামী পুলিশ কর্তৃক গ্রেফতার হওয়ার দিন থেকে দন্ডিত সাজা কার্যকর করা হবে।

মামলাটি বাদী পক্ষে অতিরিক্ত পিপি মোঃ হাসনে ইমাম নয়ন এবং আসামী পক্ষে মাজহারুল ইসলাম সরকার ও মোসলেম উদ্দীন এবং পলাতক আসামীর পক্ষে স্টেট ডিফেন্স এ্যাডঃ মোঃ খলিলুর রহমান পরিচালনা করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য