যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছ থেকে একটি ব্যক্তিগত চিঠি পেয়েছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-আন, বলছে দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম।

ওই চিঠিকে ‘চমৎকার’ বলে বর্ণনা করেছেন মি. কিম এবং বলেছেন, ‘চিঠির কৌতূহলোদ্দীপক বিষয়বস্তু নিয়ে গভীরভাবে ভাবছেন’।

মি. ট্রাম্পের ‘অসাধারণ’ সাহসেরও প্রশংসাও করেছেন তিনি।

এ মাসের শুরুর দিকে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছিলেন যে, কিম জং-আনের কাছ থেকে তিনি একটি সুন্দর চিঠি পেয়েছেন।

তবে ডোনাল্ড ট্রাম্পের চিঠি কখন আর কীভাবে মি. কিমের কাছে পৌঁছানো হয়েছে, তা পরিষ্কার করা হয়নি।

গত ফেব্রুয়ারি মাসে ভিয়েতনামে ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং কিম জং-আনের বৈঠকটি কোন সমঝোতা ছাড়াই শেষ হয়ে যায়। এরপর থেকে দুই দেশের মধ্যে আলোচনা স্থগিত হয়ে রয়েছে।

বিবিসির সংবাদদাতা বলছেন, মি. ট্রাম্প এবং মি. কিমের ওই বৈঠক ব্যর্থ হয়ে যাওযার পর এটাই দুই দেশের মধ্যে সম্পর্কে গত কয়েক মাসের মধ্যে সবচেয়ে বড় অগ্রগতি বলে মনে করা যায়।

তবে দুই নেতাই বেশ কয়েকটি চিঠি আদান-প্রদান করেছেন।

চিঠির এই সময়টিও বেশ গুরুত্বপূর্ণ। কারণ সামনের সপ্তাহেই সিউলে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জে-ইনের সঙ্গে আলোচনায় বসতে যাচ্ছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

যুক্তরাষ্ট্রের দাবি, উত্তর কোরিয়াকে তাদের পারমাণবিক কর্মসূচী ত্যাগ করতে হবে। তবে উত্তর কোরিয়ার দাবি, আগে তাদের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে হবে।

তবে গত কয়েকমাসে ডোনাল্ড ট্রাম্প বেশ কয়েকবার কিম জং-আনের ব্যাপারে আন্তরিক মনোভাব দেখিয়েছেন।

এ মাসের শুরুর দিকে তিনি রিপোর্টারদের কাছে বলেন যে উত্তর কোরিয়ায় কিম জং-আনের নেতৃত্বের বিষয়টি বিশেষভাবে অর্থবহ।

গত মে মাসে জাপান সফরের সময় কিম জং-আনকে ‘খুব চালাক একজন ব্যক্তি’ বলে বর্ণনা করেছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং উত্তর কোরিয়া থেকে অনেক ভালো কিছু আসবে বলে তিনি আশা করেন বলে জানিয়েছিলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য