ইস্টার পরবের দিন শ্রীলঙ্কার হোটেল ও গির্জায় বোমা হামলা চালিয়ে ২৫০ জনকে হত্যার পর দেশজুড়ে জারি করা জরুরি অবস্থার মেয়াদ আরও এক মাস বাড়িয়েছে সরকার।

শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা শুক্রবার মধ্যরাত থেকে জরুরি অবস্থার মেয়াদ আরও এক মাস বৃদ্ধির আদেশ জারি করেছেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

শনিবার দেশটির কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ওই বোমা হামলার সঙ্গে জড়িত অধিকাংশ নেটওয়ার্ক ভেঙে দেওয়া হয়েছে এবং আরও জঙ্গি হামলার হুমকি হ্রাস পেলেও অবশিষ্ট সন্দেহভাজনদের খোঁজে অভিযান চলমান থাকায় জরুরি অবস্থার মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে।

জরুরি অবস্থার মেয়াদ বাড়ায় দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীগুলো আরও এক মাসের জন্য জরুরি ক্ষমতা ব্যবহার করতে পারবে।

আইনানুযায়ী এই ক্ষমতা বলে শ্রীলঙ্কার পুলিশ ও সামরিক বাহিনী আদালতের নির্দেশ ছাড়াই সন্দেহভাজন যে কাউকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারছে এবং ওই হামলার পর এ পর্যন্ত শতাধিক সন্দেহভাজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

প্রেসিডেন্ট সিরিসেনা বলেছেন, “জনগণের নিরাপত্তার স্বার্থে, আইন-শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য এবং জনগণের জরুরি সেবা ও সরবরাহ রক্ষণাবেক্ষণের জন্য জরুরি অবস্থার মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে।”

শ্রীলঙ্কার হোটেল ও গির্জায় চালানো হামলার দায় স্বীকার করেছে ইসলামিক স্টেট (আইএস)। তবে শ্রীলঙ্কার কর্তৃপক্ষ হামলার জন্য দেশটির স্বল্প পরিচিত দুটি গোষ্ঠী তাওহীদ জামাত (এনটিজে) ও জামাতি মিল্লাতু ইব্রাহিমকে দায়ী করেছে।

জরুরি আইনের অধীনে দুটি গোষ্ঠীকেই নিষিদ্ধ করা হয়েছে ও তাদের নেটওয়ার্ক ভেঙে দেওয়া হয়েছে।

দেশের নিরাপত্তা পরিস্থিতি ’৯৯ শতাংশ’ পর্যন্ত নিরাপদ অবস্থায় ফিরে এলে জরুরি অবস্থা তুলে নেওয়া হবে বলে এর আগে মে-তে বিদেশি কূটনীতিকদের জানিয়েছিলেন সিরিসেনা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য