ভারতের দিল্লিতে মুখোশধারী দুর্বৃত্তদের গুলিতে আহত হয়েছেন মিতালি চান্দোলা নামের এক সাংবাদিক। দিল্লি পুলিশকে উদ্ধৃত করে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, শনিবার (২২ জুন) মধ্যরাতে তাকে পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে গুলি করে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। গুরুতর আহত অবস্থায় মিতালিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এখন তিনি আশঙ্কামুক্ত।

শনিবার রাতে নয়ডার বাসিন্দা মিতালি বসুন্ধরা এসক্লেভের সামনে দিয়ে নিজের গাড়ি হুন্ডাই আই ২০ চালিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। রাত সাড়ে বারোটার দিকে হঠাৎ একটি মারুতি সুইফট পথ আটকে দাঁড়ায়। তাকে লক্ষ্য করে পরপর দুটি গুলি চালায় দুর্বৃত্তরা। পুলিশ সূত্রকে উদ্ধৃত করে এনডিটিভি জানায়, একটি গুলি গাড়ির সামনের উইন্ডস্ত্রিন ভেঙে দেয়। অন্যটি এসে লাগে মিতালির হাতে।

মিতালি পুলিশকে জানিয়েছেন, পালানোর আগে দুর্বৃত্তরা গাড়ি লক্ষ্য করে পচা ডিমও ছুড়ে মারে। গুরুতর আহত মিতালিকে ভর্তি করা হয় ধরমশালা হাসপাতালে। তিনি এখন আশঙ্কামুক্ত।

কী কারণে মিতালির ওপর হামলা হলো সে ব্যাপারে এখনও জানা যায়নি। পুলিশ জানিয়েছে, কারা, কেন এভাবে সাংবাদিক মিতালিকে আক্রমণ করল তা জানতে তদন্ত শুরু হয়েছে। পুরনো শত্রুতার জেরে এই হামলা কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পারিবারিক বিবাদের জেরে হামলার সম্ভাবনাকেও একেবারে উড়িয়ে দিচ্ছে না পুলিশ। পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে মিতালি জানিয়েছেন, পরিবারের সঙ্গেও তার সম্পর্ক ভালো যাচ্ছে না।

পুলিশ কর্মকর্তা জশমিত সিং বলেন, ‘মিতালির হাতে গুলি লেগেছে। আপাতত বিপদমুক্ত তিনি। প্রাথমিক তদন্তে ধারণা করা হচ্ছে, সম্ভবত পারিবারিক বিবাদের জেরেই এই হামলা হয়েছে।’ অভিযুক্তদের ধরতে চিরুনি তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, ২০০৮ সালে একইভাবে রাত সাড়ে তিনটার দিকে দুর্বৃত্তদের হামলায় নিহত হয়েছিলেন ২৬ বছরের সাংবাদিক সৌম্য বিশ্বনাথন। মিতালির মতোই তিনিও দিল্লি দক্ষিণের বসন্তকুঞ্জ দিয়ে সেসময় গাড়ি চালিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য