লালমনিরহাট শহরের বিএনপি কলোনি থেকে একটি চায়না পিস্তলসহ রেলওয়ের বিভাগীয় অফিসের প্রধান অফিস সহকারী পারভেজ আক্তার টপিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ সময় আরো দুই জনকে গ্রেফতার করা হয়। গতকাল রাতে অস্ত্র উদ্ধার ও গ্রেফতারের পর সদর থানার ওসি মাহফুজ আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

আটকরা হলেন, লালমনিরহাট পৌরসভার বালাটারী বিএনপি কলোনি এলাকার বাসিন্দা ও রেলওয়ের লালমনিরহাট বিভাগীয় অফিসের প্রধান অফিস সহকারী পারভেজ আক্তার টপি (৪২), একই এলাকার মোহাম্মদ ইসলালের ছেলে মুরাদ হোসেন আনন্দ (২৩) ও মহুর আলীর ছেলে শহিদুল ইসলাম (২৩)।

পুলিশ জানান, কয়েক দিন ধরে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে অভিযান চালাচ্ছে সদর থানা পুলিশ। এরই ধারাবাহিকতায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার রাতে এক জনকে আটক করে পুলিশ। পরে তার দেওয়া তথ্যমত অভিযান চালিয়ে বাকি দু’জনকে আটক করা হয়। এ সময় রেলওয়ে কর্মচারী পারভেজ আক্তার টপি’র কাছ থেকে ৭ দশমিক ৬২ মিলিমিটারের একটি চায়না পিস্তল উদ্ধার করা হয়েছে।

রেলওয়ে লালমনিরহাট বিভাগীয় সদর দফতরের সংস্থাপন শাখার ডিভিশনাল পার্সোনাল অফিসার আব্দুল রহমান বলেন, রেলওয়ের উচ্চমান সহকারী পারভেজ আক্তার টপিকে পিস্তলসহ পুলিশ আটকের খবর স্থানীয়দের কাছ থেকে শুনে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হয়েছে। অভিযুক্ত হলে তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

লালমনিরহাট পুলিশ সুপার এস এম রশিদুল হক জানান,অস্ত্রসহ আটক ওই তিন ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য