জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতেরেস সিরিয়ার ইদলিব প্রদেশের পরিস্থিতি স্থিতিশীল করতে মঙ্গলবার রাশিয়া ও তুরস্কের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। সেখানে ব্যাপক যুদ্ধ চলায় সংস্থাটি মানবিক সংকট সৃষ্টির ব্যাপারেও সতর্ক করেছে। খবর এএফপি’র।

গুতেরেস সাংবাদিকদের বলেন, ‘ইদলিবে ব্যাপক সংঘাত ছড়িয়ে পড়ায় আমি গভীরভাবে উদ্বিগ্ন এবং সেখানকার পরিস্থিতির মারাত্মক অবনতি ঘটেছে। এর ফলে প্রদেশটির বেসামরিক নাগরিকদের চরম মূল্য দিতে হচ্ছে।’

ইদলিবের পরিস্থিতির ব্যাপারে আলোচনা করতে মঙ্গলবার জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের অধিবেশনের প্রাক্কালে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

জাতিসংঘের মানবিক বিষয়ক প্রধান মার্ক লকোক পরিষদকে বলেন, ‘আমাদের চোখের সামনে ব্যাপক মানবিক সংকট মোকাবেলা করছে বিশ্ব।’

সিরিয়ায় জিহাদিদের সর্বশেষ ঘাঁটি ইদলিব এবং আলেপ্পো ও হামাসহ বিভিন্ন এলাকাকে সরকারের ব্যাপক অভিযানের হাত থেকে রক্ষা করার লক্ষ্যে গত সেপ্টেম্বরে করা চুক্তিতে রাশিয়া ও তুরস্ক স্বাক্ষর করে।

তবে এসব এলাকা থেকে জিহাদিরা চলে যেতে অস্বীকৃতি জানানোয় চুক্তিটি কখনো পুরোপরি বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়নি।

উল্লেখ্য, গত এপ্রিল মাসের শেষের দিক থেকে সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে দেশটির সরকার ও রাশিয়া তাদের অভিযান জোরদার করে।

লকোক বলেন, ‘গত ছয় সপ্তাহের বেশি সময় ধরে ব্যাপক অভিযানের ফলে ২৩০ জনের অধিক বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়। এদের মধ্যে ৬৯ জন নারী ও ৮১ শিশু রয়েছে। হামলায় কয়েকশ’ লোক আহত হয়েছে।’

তিনি আরো জানান, গত মাসের গোড়ার দিকে থেকে প্রায় তিন লাখ ৩০ হাজার লোক তাদের ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে তুরস্কের দিকে চলে গেছে।

লকোক বলেন, বেসামরিক নাগরিক ও বেসামরিক স্থাপনায় অনতিবিলম্বে হামলা বন্ধ করা প্রয়োজন।

গুতেরেস কোন ধরনের বিলম্ব ছাড়াই সেখানকার পরিস্থিতি শান্ত করতে চুক্তিতে স্বাক্ষর করা দেশ রাশিয়া ও তুরস্কের প্রতি আহ্বান জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য