সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় কুর্দি প্রশাসন জিহাদিদের পরিবারে জন্ম নেয়া ফরাসি ১২ এতিম শিশুকে ফ্রান্স সরকারের এক প্রতিনিধি দলের কাছে হস্তান্তর করেছে। সোমবার এক সরকারি কর্মকর্তা একথা জানান। খবর এএফপি’র।

এক বিবৃতিতে পররাষ্ট্র বিষয়ক এক শীর্ষ কর্মকর্তা আব্দুলকরিম ওমর বলেন, কুর্দি কর্মকর্তারা আইএস পরিবারে জন্মগ্রহণ করা ১২ ফরাসি এতিম শিশুকে ফ্রান্সের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি দলের কাছে হস্তান্তর করেছে।

২০১৫ সালে মাত্র ১৫ বছর বয়সে আইএসের উদ্দেশ্যে লন্ডন ছেড়েছিলো বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত শামিমা বেগম। পরে সিরিয়ায় নেদারল্যান্ড থেকে আসা আইএসের নওমুসলিম ইয়াগো রিয়েদিজিককে বিয়ে করে সে। তাদের আগের দুই সন্তান নষ্ট হওয়ার পর সিরিয়ার শরণার্থী শিবিরে আরেকটি ছেলে সন্তানের জন্ম দেন শামিমা।

শিশুটিকে সুস্থ রাখতে শিবির ছেলে ব্রিটেনে চলে যেতে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু ইচ্ছা প্রকাশের পরই তার নাগরিকত্ব বাতিলের ঘোষণা দেন ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ।

পরে শামীমার সদ্যজাত শিশুটি নিউমোনিয়ায় মারা গেলে শামীমার নাগরিকত্ব বাতিলের বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় ওঠে বিশ্বজুড়ে। একই সঙ্গে একাধিক দেশ গ্রহণ করবে না বলে ঘোষণা দেয়ায় আইএসের এতিম শিশুদের নাগরিকত্ব ও দেশে ফেরা নিয়েও তৈরি হয় জটিলতা।

কিন্তু সোমবার ফ্রান্সের পক্ষ থেকে এই ১২ জন শিশুকে গ্রহণ করায় এ নিয়ে আশার আলো দেখতে পাচ্ছেন মানবাধিকার কর্মীরা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য