সামরিক বাহিনীর দমনাভিযানে বহু লোক নিহত হওয়ার পর দেশব্যাপী আইন অমান্যের ডাক দিয়েছে সুদানের গণতন্ত্রপন্থি আন্দোলনে নেতৃত্বদানকারী গোষ্ঠীগুলো।

রোববার থেকে আন্দোলন শুরু করার ও বেসামরিক সরকার গঠিত না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছে তারা, জানিয়েছে বিবিসি।

মধ্যস্থতার উদ্যোগে জড়িত তিন বিরোধীদলীয় নেতাকে গ্রেপ্তার করার পর আইন অমান্য আন্দোলনের এ ঘোষণা আসে।

ওই নেতারা ইথিওপিয়ার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে শান্তি আলোচনা ফের শুরু করার চেষ্টা করেছিলেন।

ইথিওপিয়ার প্রধানমন্ত্রী আবিয়ি আহমদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করার কিছুক্ষণ পরই শুক্রবার বিরোধীদলীয় রাজনীতিক মোহাম্মদ ইসমাতকে গ্রেপ্তার করা হয়। এর পরদিন শনিবার ভোরে বিদ্রোহী এসপিএএম-এন গোষ্ঠীর এক নেতা ইসমাইল জালাব ও তার মুখপাত্র মুবারক আরদোলকে গ্রেপ্তার করা হয়।

সুদানের অন্তবর্তী সামরিক কাউন্সিল (টিএমসি) আলোচনার প্রস্তাব দিলেও রক্তপাতের পর তাদের আর বিশ্বাস করা যায় না, এমন মন্তব্য করে প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছেন আন্দোলনের নেতারা।

এপ্রিলে ব্যাপক গণবিক্ষোভের মুখে ক্ষমতা ছাড়তে বাধ্য হন সুদানের দীর্ঘদিনের প্রেসিডেন্ট ওমর আল বশির। তারপর থেকেই দেশটি টিএমসির নিয়ন্ত্রণে আছে। সামরিক এই কাউন্সিল বেসামরিক শাসন প্রতিষ্ঠার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

কিন্তু বেসামরিক সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তরের দাবিতে রাজধানী খার্তুমে অবস্থান ধর্মঘট চালিয়ে আসছিল দেশটির গণতন্ত্রপন্থি আন্দোলনকারীরা।

গত সোমবার আধাসামরিক বাহিনী আন্দোলনকারীদের সরিয়ে দিতে অভিযান চালায় এবং এক পর্যায়ে গুলিবর্ষণ করে। এতে শতাধিক লোক নিহত হয় বলে দাবি করেছে বিরোধীদলীয় আন্দোলনকারীরা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য