মুখমণ্ডল যত্নের জন্য পরিষ্কারভাবে ধোয়া খুব জরুরি। তবে বেশির ভাগ লোকই একে তাদের সৌন্দর্যের রুটিনের একটি ক্ষুদ্র অংশ মনে করে। গরমে সূর্যের তীক্ষ্ণ তাপে অল্পতে মুখ ঘেমে যাওয়াটা স্বাভাবিক। অনেকের ত্বক আবার অতিরিক্ত তেলতেলেও হয়ে ওঠে। তাই, কিছুক্ষণ পর পর মুখ ধুয়ে ফেলেন অনেকেই। তাবে এতে আবার সম্যায় পড়তে হয়, কারণ বার বার মুখ ধুলে ত্বক হয়ে উঠবে রুক্ষ ও শুষ্ক।

দুর্ভাগ্যবশত অনেকেই বেশি বেশি মুখ ধুয়ে থাকেন। বেশি বা ভুলভাবে মুখ ধোয়া ত্বকের সমস্যা তৈরি করে, যেমন—শুষ্কতা, প্রদাহ, তেলতেলে ভাব, ব্রণ, বলিরেখা এসব সমস্যা কিন্তু বেশি মুখ ধোয়ার কারণেই হয়। সঠিকভাবে মুখ ধোয়া ত্বককে ভালো রাখে; তারুণ্যদীপ্ত রাখে।

বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, ‘সারাদিনে কমপক্ষে তিন থেকে সর্বোচ্চ পাঁচ বার পর্যন্ত মুখ ধোয়া ভালো। তবে শীত প্রধান দেশের নাগরিকদের জন্য দিনে সর্বোচ্চ দুই বার মুখ ধোয়া যেতে পারে।’

কখন কখন মুখ ধোয়া সবচেয়ে ভালো?

প্রথমবার মুখ ধুতে হবে দিনের শুরুতেই। ঘুম থেকে উঠে অনেকেই গোসল সেরে নেন। সারাদিন ফ্রেশ থাকার এটাই সব থেকে ভাল উপায়। এতে আপনার মুখের ত্বকটাও পরিষ্কার হয়ে যাবে। যদি কোনো কারণে গোসল করা সম্ভব না হয় তবে ভাল করে অন্তত মুখ ধুয়ে ফেলুন। মুখ ধোয়ার জন্য ত্বকের উপযোগী যে কোনো ফেসওয়াস ব্যবহার করা যেতে পারে।

এছাড়া রাতে শোবার আগে ভাল করে মুখ ধুয়ে নিতে ভুলবেন না। এ সময়েও ত্বকের উপযোগী ফেসওয়াস ব্যবহার করতে পারেন। তবে এরপর অবশ্যই ময়েশ্চারাইজার ক্রিম মুখের ত্বকে লাগিয়ে নিন। এতে সারা রাত আপনার তকের আদ্রর্তা বজায় থাকবে ও সকালেও ত্বকে কোমল ভাব অনুভব করবেন।

সারাদিন বাইরে কাটিয়ে আসার পরে বাড়িতে এসেই ভাল করে মুখ ধোয়া উচিত। এ সময় চাইলে ঘরে তৈরি করা যায় এমন ফেস প্যাক মুখে লাগানো ভালো। কমপক্ষে ২০ মিনিট মুখে রাখুন। ফেসপ্যাক তুলে ফেলার পরে মুখ ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ভাল করে ধুয়ে নিন। এর পরে আর ফেস ওয়াস ব্যবহারের দরকার পড়বে না।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য