হিলি (দিনাজপুর) সংবাদাতাঃ হাকিমপুরে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ-বিজিবি’র সাথে ক্রসফায়ারে দেলোয়ার হোসেন (৪৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে মংলা বিওপি ক্যাম্পের বিজিবি’র সদস্যরা তাকে উপজেলার নন্দীপুর সীমান্ত এলাকা থেকে ৯৫৮টি ইয়াবা বড়ি সহ আটক করেন। দেলোয়ার উপজেলার নন্দীপুর গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে।

জয়পুরহাট-২০ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল রাশেদ মোহাম্মদ আনিসুল হক দাবী করে জানান, আটককৃত দেলোয়ার মাদক কারবারের সাথে জড়িত।

তাকে আটকের পর জিঞ্জাসাবাদ করা হলে এসময় তিনি জানান চেংগ্রাম এলাকায় চোরাকারবারীরা বিপুল পরিমাণ ইয়াবা বড়ি পাচারের জন্য গাড়ীতে লোড করছেন।

তার দেওয়া এমন তথ্যের ভিত্তিতে তাকে নিয়ে বিজিবি সদস্যরা গতরাত ২টার দিকে সেখানে গেলে আগে থেকেই ওঁৎ পেতে থাকা চোরাকারবারীরা বিজিবি সদস্যদের উপর আক্রমণ করে গুলি চালান।

এসময় বিজিবিও পাল্টা গুলি করেন। এতে গোলাগুলিতে প্রতিপক্ষের গুলিতে ৩ জন বিজিবি সদস্য আহত হন এবং চোরাকারবারী দেলোয়ার হোসেন নিহত হন। আহত বিজিবি সদস্যদের বিজিবি ব্যাটালিয়নে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

তিনি আরও জানান, এসময় বিজিবি ঘটনাস্থল থেকে ৫০০ বোতল ফেন্সিডিল ও দেশিয় ৩টি চাপাতি উদ্ধার করেছেন।

এদিকে নিহত দেলোয়ারের স্ত্রী জেসমিন আখতার ও ভাতিজা ইমরান হোসেন জানান, দেলোয়ারের বিরুদ্ধে কোথাও কোনো মামলা নেই।

তাকে গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে নন্দীপুর রাস্তা থেকে মংলা ক্যাম্পের বিজিবি সদস্যরা আটক করে ক্যাম্পে নিয়ে যায়। এসময় তার কাছে কিছুই ছিল না। তাকে ক্যাম্পে নিয়ে শারীরিক ভাবে নির্যাতন করা হয়েছে।

পরবর্তীতে কোনো আক্রোশের জেরে তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। সকালে লাশ দেখতে থানায় গেলে ওসি আনোয়ার হোসেন আমাদের অশ্লীলভাষায় গালাগাল করে লাঠি দিয়ে মারতে উদ্যত হয় এবং থানা থেকে বের করে দেয়। আমরা এই হত্যার তদন্ত ও বিচার চাই।

হাকিমপুর থানার ওসি আনোয়ার হোসেন জানান, এঘটনায় থানায় মংলা ক্যাম্পের সুবেদার আবু সাঈদ বাদী হয়ে আজ দুটি মামলা করেছেন। নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

উপজেলার খট্টামাধবপাড়া ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন চৌধুরী জানান, এই ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি ছিলেন দেলোয়ার হোসেন। সে মাদকের সাথে কখনোই জড়িত ছিলেন না।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য