বিরল (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের বিরলে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) এর গুলিতে এক বাংলাদেশী ব্যবসায়ী নিহতের ঘটনায় বিজিবি-বিএসএফ অধিনায়ক পর্যায়ে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৪২ বিজিবি’র অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল গাজী নাহিদুজ্জামান পিএসসি ও ৪১ বিএসএফ কাটাবাড়ী ব্যাটালিয়ন এর অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল ইউ এন প্রসাদ বৈঠকে নেতৃত্ব দেন।

গতকাল সোমবার সকাল ১১ টায় বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তের ধর্মজইন-কাঠালিয়াপাড়ার ৩২১ নং মেইন পিলারের নিকট বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়।

৪২ বিজিবি’র অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল গাজী নাহিদুজ্জামান পিএসসি জানান, বাংলাদেশীকে নির্যাতন ও গুলি চালিয়ে হত্যার ঘটনা বিএসএফ অস্বীকার করলেও আমাদের প্রতিবাদের মুখে বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছে। আমরা ময়না তদন্ত রিপোর্ট পেলে আবারও বৈঠকে বসবো।

উল্লেখ্য, গত রবিবার (২৬ মে) ভোরে বিরল উপজেলার ধর্মপুর ইউপি’র ধর্মজইন সীমান্তের কাঠালিয়াপাড়া এলাকায় একই ইউপি’র কামদেবপুর (ঈদগাঁহ মোড়) এলাকার মোশাহক আলী ওরফে মশবুল এর পুত্র মোঃ আলম নিহত হয়।

নিহত আলম ধর্মজইন এলাকার সীমান্ত ঘেষা পিলার নং ৩২০/১০এস মহেরাতলা নামক স্থানে রাস্তা দিয়ে নিজ বাড়ীতে আসার সময় তাকে লক্ষ্য করে ভারতীয় বিএসএফ গুলি করে বলে স্থানীয়রা জানায়। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয় বলে এলাকাবাসী জানায়।

এ ঘটনায় আহত হয়েছেন বনগাঁও গ্রামের লুৎফর রহমানের পুত্র সোহেল রানা (৩০) ও আব্দুল মান্নানের পুত্র ইরফান হোসেন (৩২)।

বিরল থানার অফিসার ইনচার্জ এ টি এম গোলাম রসুল জানান, নিহত আলমের বিরুদ্ধে ৬টি মাদক মামলা আছে। পুলিশ তাকে দির্ঘদীন ধরে খুজছিল। লাশ সুরতহাল শেষে মর্গে পাঠানো হবে। ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আলাম দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়না তদন্ত মেসে নিহতের ভাই কামাল হোসেনের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে। রাতেই নিহতর জানাযা ও দাফন পারিবারিকভাবে সম্পন্ন হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য