দিনাজপুর সংবাদাতাঃ বাংলাদেশ জাতীয় অন্ধ কল্যাণ সমিতি দিনাজপুর (গাওসুল আযম বিএনএসবি আই সহপিটাল) বার্ষিক সভা-২০১৬, ২০১৭, ২০১৮, ২০১৯ অনুষ্ঠিত হয়। বার্ষিক সাধারণ সভায় সভাপতিত্ব করেন, দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক ও বাংলাদেশ অন্ধ কল্যাণ সমিতি দিনাজপুরের চেয়ারম্যান মোঃ মাহমুদুল আলম।

স্বাগত বক্তব্য রাখতে গিয়ে সমিতির সহ-সভাপতি এ্যাড. মোঃ আব্দুল লতিফ প্রতিষ্ঠানের অতীত এবং বর্তমানে যেসব ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান অবদান রেখেছে তাদের সকলের নিকট কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। বিগত বার্ষিক সাধারন সভার কার্য বিবরণী পাঠ করেন, নির্বাহী সদস্য মোঃ সেলিম আকতার চৌধুরী। বার্ষিক প্রতিবেদক উপস্থাপন করেন, সমিতির সাধারন সম্পাদক ডা. চৌধুরী মোসাদেকুল ইজদানী।

সমিতির আয়-ব্যয় (২০১৪-২০১৫, ২০১৫-২০১৬, ২০১৬-২০১৭, ২০১৭-২০১৮ সনের নিরীক্ষা প্রতিবেদন ও ২০১৮-২০১৯ সালের ১০ মাসের আয়-ব্যয় হিসাব ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের বাজেট উপস্থাপন করেন, দায়িত্ব প্রাপ্ত কোষাধ্যক্ষ ও সমিতির সহ-সাধারন সম্পাদক ডাঃ আইএফএম শহীদুল ইসলাম খান। মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন আজীবন ও সাধারণ সদস্যদের মধ্যে মোঃ সফিকুল হক ছটু, এ্যাড. মোল্লা মোঃ শাখাওয়াৎ হোসেন, মোকাররম হোসেন খান, এ্যাড. এস.এম শামীম আলম বাবু, এ্যাড. খন্দকার মাহতাব উদ্দিন, মোঃ আসাদুর রহমান ভুইয়া তপন, ডাঃ মোঃ আহাদ আলী।

উপস্থিত সদস্যরা প্রতিবেদন দুটিকে হাত তুলে অনুমোদন দেন। সভায় ২০১৯-২০ অর্থ বছরের জন্য ৬,৮১,৬৯,০০০/-টাকার খরচের বাজেট অনুমোদন করা হয়। সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন, নির্বাহী সদস্য এ্যাড. মোঃ মেহেরুল ইসলাম ও মোঃ আব্দুস সবুর চৌধুরী। সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন, সমিতির ব্যবস্থাপক প্রশাসন মোঃ শফিকুল আলম।

সভায় কার্যনির্বাহী ও সাধারণ সদস্যদের মধ্যে প্রায় ২শ সদস্য উপস্থিত ছিলেন। সভাপতির বক্ত্যবে জেলা প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল আলম বলেন, আগামীতে চক্ষু হাসপাতালকে একটি মডেল হাসপাতাল হিসেবে গড়ে তুলতে সকলের সহযোগীতা প্রয়োজন।

তিনি উপস্থিত সকলকে সংবিধান সংশোধন সংক্রান্ত বিষয়ে লিখিত ভাবে পরার্মশ প্রদানের জন্য আহবান জানিয়ে বলেন, উত্তরবঙ্গের ঐতিহ্যবাহী চক্ষু হসপিটাল হিসাবে এই প্রতিষ্ঠান ইতিমধ্যে জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। এর সুনাম ধরে রাখতে সকলকে আন্তরিকতার সাথে রোগীদের কল্যাণে কাজ করতে হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য