খাদ্যাভাসের কারণে আজকাল অনেকেরকেই পিত্তথলিতে পাথর জমা প্রায় সাধারণ রোগ হয়ে দাঁড়িয়েছে। পিত্তথলির সমস্যা হলে বুক জ্বালা করে, বমি হয়। খাবার খেতে না পারা, খাবার হজম না হওয়াও পিত্তথলির দুবর্লতার লক্ষণ। পিত্তথলি ভাল রাখতে ঘরোয়া কিছু পদ্ধতি অনুসরণ করতে পারেন। যেমন-

১. খাওয়া-দাওয়ার উপর পিত্তথলির কর্মক্ষমতা অনেকাংশে নির্ভর করে। যত বেশি ফ্যাট জাতীয় খাবার খাওয়া হবে পিত্তথলির উপর ততই চাপ সৃষ্টি হবে। এ কারণে ফ্যাট জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলুন। এই ধরনের খাবার রক্তে কোলেস্টেরলের পরিমাণ বাড়িয়ে দেয় যা পিত্তথলির জন্য খুবই ক্ষতিকারক। পিত্তথলি ভাল রাখতে নিয়মিত খাদ্যতালিকায় বাদাম, বিনস, টকজাতীয় ফল, মাছ, অলিভ তেল রাখুন।

২. নিয়মিত ব্যায়াম পিত্তথলির যেকোনো রকমের সমস্যা থেকে আপনাকে দূরে রাখবে। আসলে অতিরিক্ত ফ্যাট জমলেই তা পিত্তথলির ক্ষতি করে। বিশেষজ্ঞের মতে, দিনে অন্তত ২০ মিনিট ব্যায়াম করলে রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমবে। সেই সঙ্গে পিত্তথলির পাথর হওয়ার ঝুঁকিও কমবে।

৩. পেটের উপরের ডানদিকের অংশে ব্যথা অনুভব করলে কাঁচা হলুদ খেতে পারেন। কাঁচা হলুদে থাকা কারকুমিন উপাদান জ্বালা ও ব্যথা দুটিই কমাতে কার্যকরী। চায়ে দিয়ে এই হলুদ খেতে পারেন।

৪. পুদিনা পাতার চা ব্যথা দূর করতে সাহায্য করে। পেটের ব্যথা , মাথার ব্যথা দূর করতে এটি দারুণ কাযর্করী। পিত্তথলিতে ব্যথা হলে নিয়মিত পুদিনা পাতার চা খেতে পারেন। এর ঠাণ্ডা প্রভাব ব্যথা কমাতে সাহায্য করে।

৫. আপেল সিডার ভিনেগার ব্যথা কমাতে দারুণভাবে সাহায্য করে। হালকা গরম পানিতে দুই চামচ আপেল সিডার ভিনেগার মিশিয়ে অল্প অল্প করে খেতে থাকুন। এতে পিত্তথলির ব্যথা ও জ্বালা দুই -ই কমে যাবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য