হাজার হাজার উত্তর কোরীয় নারী ও মেয়েশিশুকে যৌন বাণিজ্যে কাজ করার জন্য বাধ্য করা হচ্ছে চীনে। লন্ডন ভিত্তিক একটি মানবাধিকার সংস্থার প্রতিবেদনে সম্প্রতি এমন তথ্য উঠে এসেছে। খবর বিবিসির।

লন্ডন-ভিত্তিক কোরিয়া ফিউচার ইনিশিয়েটিভ জানায়, নারীদের অপহরণ করে পতিতা হিসাবে বিক্রি করা হয়, অথবা চীনা পুরুষদের বিয়ে করার জন্য বাধ্য করা হয়।

সংস্থাটির মতে, বিভিন্ন অপরাধ সংস্থার মাধ্যমে প্রতিবছর এই উত্তর কোরীয় নারীদের নিয়ে ১০ কোটি ডলারের যৌন বাণিজ্য হয়ে থাকে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘ভুক্তভোগী ওইসব নারীদের বাংলাদেশি মুদ্রায় মাত্র ৩৫০ টাকার বিনিময়ে পতিতা হিসেবে বিক্রি করা হয় এবং প্রায় ১২ হাজার টাকার বিনিময়ে বিক্রি করা হয় স্ত্রী হিসাবে।’

পাচারের শিকার এই মেয়ে ও নারীদের বয়স ১২ থেকে ২৯ বছরের মধ্যে।

উত্তর-পূর্ব চীনের অনেক জেলাতে, যেখানে বেশিরভাগ অভিবাসী জনগোষ্ঠী বসবাস করে, সেখানকার বহু পতিতাপল্লীতে এমন অনেক নারীকে বন্দী অবস্থায় পতিতা বা দাসীর মতো জীবন কাটাতে হচ্ছে। এছাড়া অল্পবয়সী মেয়ে এবং নারীদের সাইবার সেক্স বাজারে যৌনতায় বাধ্য করা হয়।

চীনে অবস্থানরত নারী ভুক্তভোগী সেইসঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়ায় স্থানান্তরিত বেঁচে ফেরা নারীদের থেকে যাবতীয় সব তথ্য সংগ্রহ করেছে মানবাধিকার সংস্থা কোরিয়া ফিউচার ইনিশিয়েটিভ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য