মোঃ জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (নীলফামারী), সংবাদদাতা ঃ নীলফামারীর সৈয়দপুর শহরের স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আদর্শ বালিকা বিদ্যালয় ও কলেজের কৃতি শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা নগরী সৈয়দপুরের স্বপ্নদ্রষ্টা ও শিক্ষানুরাগী সাবেক সংসদ সদস্য, আদর্শ বালিকা বিদ্যালয় ও কলেজের প্রতিষ্ঠাতা এবং সৈয়দপুর পৌরসভার মেয়র অধ্যক্ষ মো: আমজাদ হোসেন সরকারের উদ্যোগে স্বর্ণের কানের দুল প্রদান করা হয়েছে।

১৮ মে (শনিবার) সকালে প্রতিষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে নিজ হাতে কানের দুল প্রদান করেন তিনি। এসময় উপস্থিত বিশিষ্ট শিল্পপতি ও ইকু গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সিদ্দিকুল আলম সিদ্দিক, পৌর প্যানেল মেয়র-৩ কাজী জাহানারা বেগম, ইক্বরা বাংলাদেশ এর স্থানীয় পরিচালক ক্বারী মকসুদ আলম।

উল্লেখ্য, এবারের এস এস সি পরিক্ষায় আদর্শ বালিকা বিদ্যালয়ের ৭৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৭৭ জন কৃতিত্বের সাথে পাশ করেছে। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১১ জন এবং গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ জন। এই ৪ জন কৃতি শিক্ষার্থী হলো যথাক্রমে- মারজিয়া, সুমাইয়া সানজিদা, মুসকান, নাদিয়া সিদ্দিকা নেহা।

কৃতি শিক্ষার্থীদের প্রেরণাদায়ক এ উপহার দেয়ার সময় প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ মো: হাবিবুর রহমান হাবিব প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে বলেন, আমরা শতভাগ পাশের প্রয়াস অব্যাহত রেখেছি। আগামীতে আরও ভালো করার জন্য সর্বাত্মক প্রচেষ্টা থাকবে। সে সাথে জিপিএ-৫ প্রাপ্তিসহ আরও মেধাবী শিক্ষার্থী গড়ে তুলতে আমরা সবসময় সচেষ্ট রয়েছি।

আমাদের প্রতিটি শিক্ষক সে নির্দেশনা অনুযায়ী তাদের মেধা ও মনন দিয়ে প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের জন্য কাজ করছে। প্রতিটি শিক্ষার্থীকে নিজের সন্তানের মত করে মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে তারা সর্বদা প্রাণপন প্রয়াস অব্যাহত রেখেছে। সবার সহযোগিতা পেলে আমরা সৈয়দপুরের বুকে শুধু নামে নয় প্রকৃতই একটি আদর্শ প্রতিষ্ঠান হিসেবে নিজেদের অবস্থান করে নিবো।

সৈয়দপুর আদর্শ বালিকা বিদ্যালয় ও কলেজের প্রতিষ্ঠাতা পৌর মেয়র অধ্যক্ষ মোঃ আমজাদ হোসেন সরকার বলেন, শিক্ষার্থীদের উৎসাহ দিলে তাদের পড়াশোনায় উৎসাহ যোগায়। পড়াশোনা ভাল হলে ফলাফল ভাল হয়। তাদের মধ্যে প্রতিযোগিতা হলে অন্য শিক্ষার্থীরা জিপিএ-৫ ও গোল্ডেন প্লাস ফলাফল করে। যারাই গোল্ডেন পাবে তাদের স্বর্ণের দুল প্রদান করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য