দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরে চাঞ্চল্যকর ঐতিহাসিক কান্তজিউ মেলায় যাত্রা প্যান্ডেলে বোমা বিস্ফোরণ মামলার ৫ জেএমবি সদস্যকে আদালতে হাজির করে ৩ জেএমবি সদস্য পালিয়ে থাকায় তাদেরকে গ্রেফতার করতে তাগিদ দিয়ে বিচারক আগামী ৮ জুন চার্জগঠনের দিন ধার্য করার আদেশ প্রদান করেন।

আদালতের একটি সূত্রে প্রকাশ, আজ মঙ্গলবার দিনাজপুর জেলার চাঞ্চল্যকর কান্তজিউ রাস মেলায় যাত্রা প্যান্ডেলে জেএমবি সদস্যদের বোমা বিস্ফোরণ ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার দিন ধার্য ছিল। মামলার গ্রেফতারকৃত আসামী জেএমবির শীর্ষ এহসার সদস্য শরিফুল ইসলাম ওরফে ডেনিস ওরফে সিফাত ওরফে জিৎ (৩০), মোসাব্বিরুল আলম খন্দকার ওরফে প্রিন্স ওরফে রিপন (২৮), মানিক মিয়া (২৫), রমজান আলী (২২) ও জামাল উদ্দীন আহমেদ (৪৩)কে কড়া পুলিশ প্রহরায় আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় দিনাজপুরের জেলা ও দায়রা জজ আজিজ আহমেদ ভুঞা এর আদালতে হাজির করা হয়।

বিচারক মামলার চার্জশীট ভুক্ত আসামী রাজিবুল ইসলাম ওরফে বাধন, আব্দুল খালেক ওরফে খালেদ ওরফে মামা ও রাজিব ওরফে সুজন ওরফে জাহাঙ্গীর আলম ওরফে সুবাশ পলাতক থাকায় তাদেরকে গ্রেফতার করতে তাগিদের আদেশ দিয়ে আগামী ৮ জুন চার্জ গঠনের জন্য দিন ধার্য করেন। আটক ৫ জেএমবি সদস্যকে বিকেলে কড়া পুলিশ প্রহরায় পুনরায় জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য যে, গত ২০১৫ সালের ৪ ডিসেম্বর রাত ১২টায় যাত্রা চলাকালীন সময়ে ৬টি বোমা বিস্ফোরিত হলে দর্শকদের মধ্যে আতঙ্কে ছুটাছুটি শুরু হয়। বোমা বিস্ফোরণে দর্শক সাইদুর (২৫), জব্বার (২৮), উমা কান্ত (২২), মিঠু (৩০), মোসাদ্দেক (২৭) ও সাধন (৩৫) গুরুতর আহত হয়। আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বাণ ইউনিটে ভর্তি করা হয়।

দীর্ঘ সময় চিকিৎসায় তারা সুস্থ হন। এই ঘটনায় কান্তজিউ মেলার ইজারাদার হারেজ আলী শাহ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা জঙ্গীদের বিরুদ্ধে কাহারোল থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলাটি দিনাজপুর ডিবি পুলিশ এসআই বজলুর রশিদ তদন্ত করে গত ২০১৬ সালের ৩০ জুন গ্রেফতারকৃত ৫ ও ৩ পলাতক জেএমবিসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে। মামলাটি বিচার কার্যক্রম দিনাজপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতে চলছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য