তুরস্কের ভাইস প্রেসিডেন্ট ফুয়াত ওকতাই দৃঢ় সংকল্প ব্যক্ত করের বলেছেন, রাশিয়ার কাছ থেকে অত্যাধুনিক আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা এস-৪০০ কেনার ক্ষেত্রে তার দেশ মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কাছে আত্মসমর্পন করবে না। তিনি তুরস্কের ৭ নম্বর টিভি চ্যানেলকে দেয়া এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে ওই প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

তুর্কি ভাইস প্রেসিডেন্ট বলেন, এস-৪০০ ইস্যুতে আমেরিকার আপত্তি অযৌক্তিক এবং আঙ্কারা এই আপত্তি আমলে নেবে না। তিনি জোর দিয়ে বলেন, তুরস্কের জাতীয় স্বার্থে যখন একবার এস-৪০০ কেনার সিদ্ধান্ত হয়ে গেছে তখন তা থেকে আর পিছপা হবে না আঙ্কারা।

রাশিয়ার কাছ থেকে এই ব্যবস্থা কেনার সিদ্ধান্ত বাতিল না করলে মার্কিন সরকার আঙ্কারাকে এফ-৩৫ জঙ্গিবিমান সরবরাহ করবে না বলে ওয়াশিংটন আবারো হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করার দু’দিন পর ওকতাই এ বক্তব্য দিলেন। শুক্রবার মার্কিন ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী প্যাট্রিক শানাহান তুর্কি সরকারের প্রতি ওই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, বিষয়টি নিয়ে তিনি এফ-৩৫ নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান লকহিড মার্টিনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলাপ করেছেন।

এদিকে, রাশিয়ার রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত হাই-টেক শিল্পপণ্য রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান রোসটেক কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী সের্গেই চেমাজোভ গত ২ মে বলেছেন, আমেরিকা তুরস্কের কাছে এফ-৩৫ জঙ্গিবিমান বিক্রি করতে অস্বীকৃতি জানালে রাশিয়া আঙ্কারাকে সুখোই এসইউ-৫৭ যুদ্ধবিমান সরবরাহ করতে প্রস্তুত রয়েছে।
সের্গেই চেমাজোভ

তিনি বলেন, রাশিয়ার পঞ্চম প্রজন্মের এই যুদ্ধবিমান (এসইউ-৫৭) অত্যাধুনিক মান বজায় রেখেছে এবং রপ্তানিযোগ্য সমরাস্ত্রের যোগ্যতা অর্জন করেছে। চেমাজোভ বলেন, এস-৪০০ আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার পাশাপাশি এসইউ-৫৭ যুদ্ধবিমানের প্রযুক্তিও তুরস্ককে সরবরাহ করতে প্রস্তুত রয়েছে রাশিয়া।

রোসটেক কর্পোরেশনের প্রধান বলেন, “তুরস্কের নিজস্ব প্রতিরক্ষা শিল্প উন্নয়নের আকাঙ্ক্ষা পূরণে সব রকম সহযোগিতা করতে প্রস্তুত রয়েছে মস্কো।”
-পার্সটুডে

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য