ফিলিস্তিনি কর্মকর্তারা জানান, মিসরীয় মধ্যস্থতাকারীর উদ্যোগে অস্ত্রবিরতি সোমবার স্থানীয় সময় ভোর সাড়ে ৪টা থেকে কার্যকর। টানা সহিংসতার দ্বিতীয় দিনে গাজা থেকে ইসরায়েলি ভূখণ্ডে ছয় শতাধিক রকেট ছোড়া হয়েছে। গাজা থেকে রকেট হামলায় চার ইসরায়েলি নিহত। গাজা উপত্যকায় কয়েক শ’ অবস্থানে ইসরায়েলের বিমান হামলায় ২৩ ফিলিস্তিনি নিহত। ২০১৪ সালের যুদ্ধের পর প্রথমবারের মতো টার্গেট করে হামাসের অর্থদাতাকে হত্যা করেছে ইসরায়েল।

অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় আগ্রাসন জোরালো করেছে ইসরায়েল। হামাসসহ ফিলিস্তিনি জাতি-মুক্তি আন্দোলনের সংগঠনগুলো ইসরায়েলকে লক্ষ্য করে রকেট হামলা চালিয়ে তার জবাব দিচ্ছে। শুক্রবার গাজা উপত্যকায় ফিলিস্তিনি বিক্ষোভ থেকে নতুন করে এই লড়াই শুরু হয়। ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর তরফে জানানো হয়েছে, ফিলিস্তিনের অভ্যন্তরে ৩২০টি লক্ষ্যবস্তুতে বিমান হামলা চালানো হয়েছে। আর ফিলিস্তিনি ভূমি থেকে ৬০০ রকেট হামলা চালানো হলেও বেশিরভাগই প্রতিহত করা হয়েছে। এদিকে ফিলিস্তিনি ভূমিতে হামলা জোরালো করার নির্দেশ দিয়েছেন ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী। গাজার কর্মকর্তাদের দাবি, গত দুই দিনে ইসরায়েলি বিমান হামলায় ২৩ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। আর ফিলিস্তিনি রকেট হামলায় চার নাগরিক নিহতের দাবি করেছে ইসরায়েল। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, গত কয়েক বছরের মধ্যে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনি প্রতিরোধকারীদের মধ্যে এটা অন্যতম তীব্র লড়াই।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানায়, শুক্রবার নতুন করে সহিংসতা শুরুর পর জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের একাংশ উত্তেজনা প্রশমনের আহ্বান জানিয়েছিলেন। রবিবার রাতে জাতিসংঘ, কাতার ও মিসর অস্ত্রবিরতির জন্য মধ্যস্থতার উদ্যোগ নেয়। সোমবার সকালে ফিলিস্তিনি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, অস্ত্রবিরতিতে তারা সম্মত হয়েছেন। সোমবার স্থানীয় সময় ভোর সাড়ে চারটা থেকে এই অস্ত্রবিরতি কার্যকর হবে। তবে এই বিষয়ে ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষের কোনও নিশ্চয়তা পাওয়া যায়নি। রবিবার রাতজুড়েই বিমান হামলা অব্যাহত রেখেছে দখলদার ইসরায়েল।

ইসরায়েলি আগ্রাসন প্রতিরোধের ধারাবাহিকতায় গাজা উপত্যকায় দশ বছরের বেশি সময় ধরে চলা অবরোধের প্রতিবাদে শুক্রবার আবারও বিক্ষোভে নামে ফিলিস্তিনিরা। ওই বিক্ষোভের মধ্য থেকে এক ফিলিস্তিনির ছোড়া গুলিতে সীমান্ত বেড়ার কাছে দুই সেনা আহত হওয়ার দাবি করে ইসরায়েল। এর জবাবে বিমান হামলা চালিয়ে দুই ফিলিস্তিনিকে হত্যা করা হয়। ওই দুই ফিলিস্তিনিকে সন্ত্রাসী আখ্যা দেয় ইসরায়েল।

এ ঘটনার জেরে শনিবার সকাল থেকে ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকা থেকে ইসরায়েলি ভূমি লক্ষ্য করে রকেট ছোড়া শুরু হয়। ইসরায়েলের আয়রন ডোম ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা বহু রকেট প্রতিহত করতে পারলেও বেশ কয়েকটি ইসরায়েলের বিভিন্ন শহর ও গ্রামে আঘাত হানে। এসব রকেট হামলায় তিন ইসরায়েলি নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ।

গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, শুক্রবার থেকে রবিবার পর্যন্ত অন্তত ২৩ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। এদের বেশিরভাগই নিহত হয়েছেন রবিবার। ইসলামিক জিহাদ গোষ্ঠী জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে তাদের সাত সদস্য রয়েছে।

বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, নিহতদের মধ্যে ১২ বছরের এক ছেলে, দুই গর্ভবতী নারীও রয়েছেন।

রবিবার ইসরায়েলের সেনাবাহিনী হামাস কমান্ডার হামেদ হামদান আল-খোদারিকে টার্গেট করে গুপ্তহত্যার কথা স্বীকার করেছে। আল-খোদারির গাড়িতে ইসরায়েলি হামলার ভিডিও প্রকাশ করে এই স্বীকারোক্তি দেয় ইসরায়েলি সেনাবাহিনী।

এবারের হামলায় ইসরায়েল যেসব ভবন ও স্থাপনা ধ্বংস করেছে সেগুলোর মধ্যে গাজার একটি বহুতল ভবন রয়েছে। এই ভবনে হামাসের গোয়েন্দা দফতর অবস্থিত ছিল। তুরস্ক জানিয়েছে, তাদের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আনাদোলু এজেন্সির কার্যালয় ছিল সেখানে।

রবিবার রাতে হামাস নেতা ইসমাইল হানিয়ে এক বিবৃতিতে বলেছেন, ইসরায়েল যদি পূর্ণ অস্ত্রবিরতির প্রতিশ্রুতি দেয় তাহলেই কেবল পুরো শান্ত অবস্থায় ফিরে যাওয়া সম্ভব।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য