ফুলবাড়ী সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির বর্জ ২৫ বছর জমাট থাকার পর কেবল অপসারণ শুরু করেছে খনি কতৃপক্ষ।

স্থানীয়দের অভিযোগ খনির মূল্যবান বর্জ ২৫ বছরে মাটি হয়ে যাওয়ায় এখন মূল্যহীন হয়ে পড়েছে।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় খনির অভ্যান্তরের উত্তর দিকে খনির বর্জের স্তুব জমে রয়েছে, সেই বর্জ লোডার মেশিন দিয়ে ট্রাকে র্ভতি করে অপসারন করছে খনি কতৃপক্ষ।

খনি সুত্রে জানা গেছে খনির সূচনা লগ্ন বিগত ১৯৯৪ সাল থেকে এই বর্জ গুলো সেখানে রাখা ছিল, বর্জের ভিতরে এখনো লোহার রড ও এ্যাংগেলের ধ্বংশাষেশ দেখা যাচ্ছে।

সেই বর্জ গুলোকে ঝাকিয়ে সেগুলোকে বৈগ্রাম-বড়পুকুরিয়া বাজারের যাতায়াতের দেবে যাওয়া রাস্তায় ফেলিয়ে উঁচু করা হচ্ছে।

স্থানীয়রা জানায় খনির ভূগর্ভের পরিত্যাক্ত বর্জ লোহার রড, এ্যাংগেল ও ইট সেই সময় মূল্যবান হলেও, ২৫ বছরে তা মাটিতে পরিনত হয়ে মূল্যহীন হয়ে পড়েছে।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে খনির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ফজলুর রহমান বলেন, ইতোপুর্বে দায়িত্বে থাকা ব্যবস্থাপনা পরিচালকগণ এই বর্জ অপসারণ বা নিলামের ব্যবস্থা গ্রহন করেনি, ফলে এই বর্জ এখন খনির পরিবেশের ক্ষতির ক্রন হয়ে দাড়িয়েছে। তাই তিনি দায়িত্ব নেয়ার কয়েক মাসের মধ্যে বর্জ অপসারণের উদ্যোগ নেন।

এমডি ফজলুর রহমান আরো বলেন এই বর্জ দিয়ে খনির কারনে ক্ষতিগ্রস্থ হওয়া বড়পুকুরিয়া বাজার থেকে বৈগ্রাম রাস্তাটি মেরামত করা হচ্ছে, এেেতকরে ওই এলাকার মানুষ উপকৃত হবে বলে তিনি জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য