আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধাঃ গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার রাজাবিরাট হাইস্কুলের ১২ বছরের কিশোরী ৬ষ্ঠ শ্রেণির (মোহসিনা আকতার মোহিনী) ছাত্রীকে কুপস্তাব দেয়া, উত্ত্যক্ত করা ও অপহরণের অভিযোগে রোববার একজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।

এছাড়া ১ লাখ টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরো ৬ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া অপর তিন আসামিকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়। গাইবান্ধার নারী শিশু অপরাধ ট্রাইব্যুনালের বিচারক আব্দুর রহমান এই রায় প্রদান করেন।

যাবজ্জীবন প্রাপ্ত আসামি গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার চাপড়াপাড়া গ্রামের আবু সামাদের ছেলে আরিফুল ইসলাম (২৩)। এছাড়া বেকসুর খালাসপ্রাপ্ত আসামিরা একই গ্রামের সুলতান সরকার, আবু তালেব এবং পার্শ্ববর্তী জয়পুরহাট জেলার কালাই উপজেলার রানদিঘি গ্রামের জহুরুল ইসলাম।

মামলা বিবরণে জানা গেছে, আরিফুল ইসলাম উক্ত নাবালিকা কিশোরী ছাত্রীটিকে দীর্ঘদিন যাবত উত্যক্ত এবং কুপস্তাব দিয়ে আসছিল। এব্যাপারে মেয়ের পিতা বিষয়টি আসামির পিতা মাতা ও আত্মীয়স্বজনকে অবহিত করলেও তারা এব্যাপারে কোন কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি।

উপরন্ত মেয়ের পিতা ও মেয়েটিকে তারা নানাভাবে হুমকি দিয়ে আসছিল। এই ঘটনার জের ধরে ২০১৫ সালের ২ সেপ্টেম্বর বিকাল ৪টায় স্কুল ছুটির পর ছাত্রীটি বাড়ির ফেরার পথে গোমড়াদিঘি চাপড়াপাড়ার মাঝামাঝি রাস্তায় পূর্ব থেকে ওৎ পেতে থাকা একটি মাইক্রোতে করে আরিফুল ইসলাম অন্যান্য আসামিদের সহযোগিতায় জোরপূর্বক ওই কিশোরীকে অপরহরণ করে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় মেয়ের পিতা মোখলেছার রহমান বাদি হয়ে গোবিন্দগঞ্জ থানায় ৪ জনকে আসামি করে নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য