দিনাজপুর সংবাদাতাঃ বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে দলকে শক্তিশালী ও সাংগঠনিক ভাবে মজবুত করার লক্ষ্যে সারা দেশে তৃণমূল পর্যায়ে কর্মীদের ডাটাবেজ প্রণয়ন করা হবে।

সেই সাথে সরকারের লক্ষ্য ও কর্মসূচী বাস্তবায়নে যুবলীগের কমীদের গড়ে তোলার কাজ চলছে। নানামুখী ষড়যন্ত্রকে প্রতিহত করে শেখ হাসিনার সরকারের কল্যাণ ও উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখার জন্য কর্মীদের সজাগ ও সতর্ক থাকতে হবে।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টায় দিনাজপুর গোর-এ শহীদ বড়ময়দানে জেলা আওয়ামী যুবলীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও যুবলীগের সাবেক চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি একথাগুলো বলেন।

জেলা যুবলীগের সভাপতি এ্যাডঃ দেলোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন সংগঠনের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী এ্যাডঃ মোস্তাফিজুর রহমান এমপি, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি, জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি, মহিলা এমপি জাকিয়া তাবাসসুুম জুই, যুবলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য শহীদ সেরনিয়াবাত এবং সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান হোসেন খানসহ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ সাইফুল ইসলামের পরিচালনায় প্রধান অতিথি জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, শেখ হাসিনার সরকার যুব সমাজকে অগ্রগতির কাজে পরিণত করে উৎপাদন ও উন্নয়নের যাত্রাকে বেগবান করছেন। দেশে কোন বেকার যুবক থাকবে না বলে ইতিমধ্যে ৩ কোটির মধ্যে ১ কোটি ৩০ লক্ষ যুবকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

আওয়ামী লীগকে তৃণমূল পর্যায়ে শক্তিশালী সাংগঠনিক কাঠামোর উপর দাঁড় করানোর জন্য শিঘ্রই সারা দেশে ডাটাবেজ তৈরী করে কর্মীদের তালিকা চুড়ান্ত করা হবে। কেউ যেন দলের ক্ষতি করতে না পারে সেই জন্য সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের সজাগ থাকার আহ্বান জানানো হয়।

ঈদের আগেই ঢাকা-দিনাজপুরের মধ্যে বিরতীহীন ট্রেন সার্ভিস চালু করা হবে। ঈদের পর দিনাজপুর জেলা আওয়ামী লীগের সকল পর্যায়ের কর্মীদের নিয়ে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে বলে তিনি জানান।

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু আদর্শ ও নীতির প্রশ্নে কখনই আত্মসমর্পন করেননি। তিনি জীবনকে তুচ্ছ করে বাঙ্গালি জাতির মুক্তির জন্য সংগ্রাম করেছেন। শেখ হাসিনার ডেল্টাপ্লানসহ উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড বাস্তবায়নে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে বলেন, মেধা, জ্ঞান ভিত্তিক ও বুদ্ধিদীপ্ত কর্মীদের যুবলীগের পতাকা তলে সমবেত হওয়ার আহ্বান জানান।

সাবেক মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান এমপি বলেন, প্রলোভন দিয়ে রাজনীতি হয় না। রাজনীতির জন্য প্রয়োজন ত্যাগ, নিষ্ঠা ও সততা। তিনি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জাতিকে সামনের দিকে এগিয়ে নেয়ার জন্য যুবলীগ নেতাকর্মীদের আহ্বান জানান।

হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বলেন, যুবলীগের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে যুব সমাজকে মাদকের কড়ল গ্রাস থেকে দুরে থাকতে হবে। প্রলোভনে ও লোভে পড়ে যুব সমাজেরা মাদকাসক্ত হয়ে যাচ্ছে। যুব সমাজের প্রত্যেক নেতাকর্মীকে মাদকমুক্ত থেকে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার কারিগর হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে যুগোপযোগী জ্ঞান অর্জনে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণে নিজেদের সম্পৃক্ত করার আহ্বান জানান।

প্রথম অধিবেশনে জেলার ১৩টি উপজেলা ও ৯টি পৌরসভার কাউন্সিলর এবং ডেলিগেট ও আমন্ত্রিত আওয়ামী লীগসহ অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দের অংশগ্রহণে সফলভাবে অনুষ্ঠান আলোচনার মধ্য দিয়ে বিকেল ৫টায় সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়। এরপর সন্ধ্যায় ভোটের মাধ্যমে আগামী দিনে জেলা যুবলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ অন্যান্য পদে নেতা নির্বাচন করা হবে বলে জানানো হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য