জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) সংবাদদাতা ॥ নীলফামারীর সৈয়দপুরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে অসামাজিক কাজে নিয়োজিত থাকাবস্থায় হাতে নাতে বাড়ির মালিকসহ ২ পতিতা ও ২ খদ্দেরকে আটক করা হয়েছে।

২৯ এপ্রিল দিবাগত রাত ৯টায় শহরের গোলাহাট বাজার সংলগ্ন শাহ ভিলা থেকে তাদের আটক করা হয়। আটক ব্যক্তিরা হলেন শাহ ভিলার মালিক গোলাহাট কবরস্থান সংলগ্ন এলাকাবাসী মৃত. আজিজুল ইসলামের ছেলে বরকতুল ইসলাম বিপ্লব (৪২), খদ্দের ২ জন সৈয়দপুর উপজেলার বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের উত্তর সোনাখুলির দলবাড়িপাড়ার ইনসান আলীর ছেলে মেরাজুল ইসলাম (৩৫) ও একই এলাকার আ: আলিমের ছেলে আলেফ হোসেন (৩৬) এবং ২ পতিতা যথাক্রমে ঢাকার টঙ্গি বোর্ড বাজারের মৃত. কালু বেপারীর মেয়ে হোসনে আরা (৩২) ও ঢাকার বাবু বাজারের আলমের মেয়ে লাকী (২২)।

সৈয়দপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট পরিমল কুমার সরকার অভিযান পরিচালনা করেন। পরে আটককৃতদের সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদে নিয়ে ভ্রাম্যমান আদালতে সাজা প্রদান করা হয়। এতে বাড়ির মালিক ও পুরুষ খদ্দেরদের প্রত্যেকেকে ২৯ দিনের কারাদন্ড এবং পতিতা ২ জনের প্রত্যেককে ২০ দিনের কারাদন্ড প্রদান করেন। পরের দিন ৩০ এপ্রিল আটক সকলকে জেল হাজাতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে সহকারী কমিশনার পরিমল কুমার জানান, অনেক দিন থেকেই অভিযোগ পাচ্ছিলাম যে শাহ ভিলাতে দেহ ব্যবসা চালানো হয়। কিন্তু সুদির্নিষ্টভাবে তথ্য না পাওয়ায় তাদের ধরা সম্ভব হয়নি।

উল্লেখ্য, এলাকার প্রভাবশালী হওয়ায় বিপ্লব দীর্ঘদিন থেকেই শাহ ভিলাতে দেহ ব্যবসা পরিচালনা করে আসছিল। এলাকাবাসী প্রায় ১ মাস পূর্বে কয়েকজনকে হাতে নাতে আটক করলেও আত্মীয় পরিচয়ে সে সময় পার পেয়ে যায়। কিন্তু এবার প্রশাসনের অভিযানে বিপ্লবসহ ৫ জন আটক হওয়ায় এলাকাবাসীর মধ্যে স্বস্তি ফিরে এসেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য