স্পেনে চার বছরের মধ্যে তৃতীয়বারের মতো সংখ্যাগরিষ্ঠ আসন পেল দেশটির ক্ষমতাসীন প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজের দল স্প্যানিশ সোশ্যালিস্ট ওয়ার্কার্স পার্টি। তবে এবারের সংখ্যাগরিষ্ঠতা গত দুইবারের চেয়ে কম হওয়ায় সরকার গঠন করতে তৈরি করতে হবে রাজনৈতিক জোট।

স্থানীয় সময় রবিবার স্পেনের সাধারণ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। এবারের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক বিভক্তি ও অনিশ্চয়তা গত কয়েক দশকের মধ্যে সবচেয়ে প্রকট আকার ধারণ করেছে। বিশ্লেষকদের আশঙ্কা, এবারের নির্বাচনের মধ্য দিয়ে দেশটির পার্লামেন্টে উগ্র ডানপন্থীদের উত্থান ঘটতে পারে।

গত দুইবারের তুলনায় এবারে সোশ্যালিস্ট পার্টির সংখ্যাগরিষ্ঠতা কিছুটা কম। ফলে জয় পেলেও একক সরকার গঠন করতে পারছেন না পেদ্রো সানচেজ। ভোটের ফলাফল থেকে দেখা যায়, প্রধানমন্ত্রী সানচেজের দল ২৯ শতাংশ ভোট পেয়েছে। তবে সরকার গঠনের জন্য তা যথেষ্ট না হওয়ায় স্থানীয়, মধ্য-ডানপন্থী কোনও দলের সঙ্গে জোট করতে হবে তাদের।

স্পেনে সরকার গঠনের নিয়ম অনুযায়ী, একটি রাজনৈতিক দলকে ৩৫০টি আসনের মধ্যে এককভাবে সরকার গঠন করতে হলে কমপক্ষে ৫০ শতাংশের বেশি বা ১৭৬টি আসনে জয় পেতে হবে। সেই হিসেবে সোশ্যালিস্টরা নির্বাচনে ৫০ শতাংশ আসন না পাওয়ায় জয় নিয়েও সরকার গঠনের সংশয়ে থাকতে হচ্ছে তাদের।

সোশ্যালিস্টদের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে আছে পাবলো ক্যাসাডোর নেতৃত্বে পপুলার পার্টি। তারা পেয়েছে ১৭ দশমিক ৮ শতাংশ ভোট (৬৯ থেকে ৭৩ আসন)। আলবার্ট রিভেরার সিটিজেন্স পেয়েছে ১৪ দশমিক ৪ শতাংশ ভোট (৪৮ থেকে ৪৯ আসন)। আর পাবলো গ্লেসিয়াসের উনিডাস পডেমাস এবং স্যান্টিয়েগো এবাসকালের ডানপন্থী ভক্স পেয়েছে যথাক্রমে ১৬ দশমিক ১ শতাংশ (৪২ থেকে ৪৫ ভোট) এবং ১২ দশমিক এক শতাংশ (৩৬ থেকে ৩৮ আসন) করে ভোট।

ফলাফল ঘোষণার পর বিজয়ী ভাষণে সানচেজ বলেন, তার দল বৈষম্য ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই করতে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, ভবিষ্যত জিতেছে এবং অতীত হেরে গেছে।’

অন্যদিকে ১৯৭০ সালে সামরিক শাসনের অবসানের পর প্রথমবারের মতো দেশটিতে কোনও ডানপন্থী দল পার্লামেন্টে প্রবেশ করছে। দলটি বহুত্ববাদ, অবাধ অভিবাসের বিরোধিতা করে। বিশ্লেষকরা বলছেন, কাতালান স্বাধীনতা আন্দোলনের সময় দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়া ক্ষোভের কারণে সমর্থন বেড়েছে ভক্সের।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য