কাহারোল (দিনাজপুর) সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলায় দিন, দিন রবি মৌসুমের ভূট্টা চাষ বৃদ্ধি পাচ্ছে। ধান ও গমের চেয়ে খরচ কম হওয়ায় এবং বেশি লাভের আশায় চাষীরা ভূট্টা চাষে ঝুকে পড়েছে।

কাহারোলের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, মাঠের পর মাঠ জুড়ে ভূট্টা ক্ষেত। যে সব জমিতে দীর্ঘদিন যাবৎ বোরো ধান অথবা গম চাষে পূর্ণ ছিলো, সেগুলো এবার সবুজ ভূট্টায় ভরে গেছে। কেউ কেউ ভূট্টা ক্ষেতে পানি দিচ্ছেন।

আবার কেউবা ভূট্টা তুলছেন। কাহারোল উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গত বছরে ভূটা চাষের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৮ হাজার ৪৫০ হেক্টর। প্রতি হেক্টরে খরচ হয়েছিল ৮ হতে ৯ মেট্রিক টন করে। এতে করে গেল বছর লাভের মুখ দেখে এবার রবি ভূট্টা চাষে আরও আগ্রহ বেড়েছে এ অঞ্চলের কৃষকেরা।

ফলে এবছর রবি মৌসুমে লক্ষ্যমাত্রা অতিক্রম করে ভূট্টা চাষ হয়েছে ১০ হাজার ৩ শ হেক্টর জমিতে। এবারের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৮ হাজার ৮৫০ হেক্টর। কিন্ত লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়েছে ১০ হাজার ৩ শ হেক্টর।

উপজেলার গোপালপুর গ্রামের কৃষক রঞ্জিত কুমারের সাথে কথা বললে তিনি জানান, ভূট্টা আবাদে খরচ কম, ফলন বেশি। বাজারে দামও ভালো পাওয়া যায়। উপজেলা উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ জুলফিকার আলী জানান, পোল্ট্রির ফিড, মাছের ফিড, গবাদিপশুর খাদ্য তৈরীতে ভূট্টার ব্যাপক চাহিদা থাকে। তাই এতে লোকসান সাধারণ হয় না।

আবার স্বল্প সেচ খরচ কম লাগায় ধানের বদলে ভূট্টা চাষে বেশি আগ্রহী কৃষকরা। কিন্তু এবার যদি চাষীরা বস্তা প্রতি ৮ শত টাকা না পেয়ে থাকে তাহলে আগামীতে ভূট্টা চাষে আগ্রহ কমে যাবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য