কুড়িগ্রামের উলিপুরে গৃহবধু সুফিয়া বেগম হত্যাকান্ডের ঘটনায় স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আজ সোমবার দুপুরে নিহত গৃহবধুর স্বামী মিল্টন মন্ডলকে জেল-হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে, উপজেলার ব্রহ্মপূত্র নদ বিচ্ছিন্ন সীমান্তবর্তি সাহেবের আলগা ইউনিয়নের চর জাহাজের আলগা গ্রামে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, প্রায় ৩ বছর আগে মেকুরের আলগা গ্রামের নাগর আলীর কন্যা সুফিয়া বেগম (২০) এর সঙ্গে পার্শ্ববর্তি জাহাজের আলগা গ্রামের জাহাঙ্গীর মন্ডলের পুত্র মিল্টন মন্ডল (২৩)এর বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই উভয়ের মধ্যে দাম্পত্য কলহ শুরু হয়।

এরই জের ধরে গত শনিবার দিবা গত রাতে কোন এক সময় গৃহবধুকে হত্যা করা হয়। খবর পেয়ে পুলিশ গতকাল রবিবার বিকেলে নিহতের লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পরে ওই গৃহবধুর পিতা নাগর আলী বাদী হয়ে উলিপুর থানায় জামাই মিল্টন সহ ৪ জন কে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

সাহেবের আলগা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সিদ্দিক মন্ডল জানান, গত রবিবার সকালে নিহত গৃহবধুর পিতার মাধ্যমে জানতে পেরে ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে গিয়ে ঘরের মেঝেতে সুফিয়া বেগমের লাশ পরে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেই।

থানার অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, স্বামী মিল্টন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়ার পর আদালতের মাধ্যমে তাকে জেল-হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য কুড়িগ্রাম মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য