দিনাজপুর সংবাদাতাঃ গ্রাম বাংলার দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষের দোরগোড়ায় মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিতে শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বে বর্তমান সরকার নানা কর্মসূচী বাস্তবায়ন করে চলেছে উল্লেখ করে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ মোঃ শাহজাহান বলেছেন, ৫শ শয্যা’র এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কিছু সমস্যা থাকা সত্যেও প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৮শ রোগীকে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হচ্ছে এবং বহির্বিভাগে প্রতিদিন হাজারো রোগীকে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়।

১৮ এপ্রিল বৃহস্পতিবার দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালের আয়োজনে “স্বাস্থ্য সেবা অধিকার, শেখ হাসিনার অঙ্গীকার” এ প্রতিপাদ্য বিষয়ে সামনে রেখে জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা সপ্তাহ-২০১৯ উপলক্ষে স্বাস্থ্যসেবার মানোন্নয়নে সেবাদাতা ও সেবা গ্রহীতাবৃন্দের মধ্যে মত বিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজের পরিচালক ডাঃ মোঃ শাহজাহান এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, এই জনপদের প্রতিটি মানুষ যাতে এই হাসপাতালে স্বাস্থ্য সেবা পায় সে ব্যাপারে হাসপাতালের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম প্রতিটি মুতুর্ত সুন্দর পরামর্শ ও দিকনির্দেশনা দিয়ে থাকেন। তিনি চান এই হাসপাতালটি যেন স্বাস্থ্য সেবায় দেশের অন্যতম হাসপাতালে রুপান্তরিত হয়। তাই আমাদেরও রোগীর সেবায় আরো যতœবান হয়ে নিরলসভাবে কাজ করে যেতে হবে।

মত বিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডাঃ মোঃ শাহাদৎ হোসেন, গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু জাফর সিদ্দিক, বিদ্যুৎ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আব্দুল মতিন, সার্জারী বিভাগের সহযোগী অধাপক ডাঃ মোঃ আব্দুস সালাম, অর্থ সার্জারী বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ মোঃ নাদির হোসেন, গাইনী বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ জাহানারা বেগম মুন্নি, শিশু বিভাগের সিনিয়র কনসালটেন্ট ডাঃ মনিন্দ্র নাথ রায়, এ্যানেসথেসিওলজিষ্ট বিভাগের ডাঃ রেহান উদ্দীন, সার্জারী বিভাগের ডাঃ সাইফুল ইসলাম রানা, আাবাসিক সার্জন ডাঃ আশিক ইকবাল, প্রশাসনিক কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ, নার্সিং সুপারভাইজার মোছাঃ মনোয়ারা খাতুন, ডেপুটি নার্সিং সুপারইনটেনডেন্ট মাতৃণা সরেন প্রমুখ। সেবা গ্রহীতাদের পক্ষে মতামত ব্যক্ত করেন বোচাগঞ্জ উপজেলার নুর ইসলাম, ফুলবাড়ী উপজেলার মিনহাজুল ইসলাম, খানসামা উপজেলার জয়দেব রায়, সদরের এনামুল হক, কাকুলি রানী রায়, উম্মে কুলছুম, আমেনা বেগম প্রমুখ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য