আজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: লালমনিরহাটের পাটগ্রামে স্বামীর দেয়া আগুনে দগ্ধ হওয়ার ৬ দিন পর গৃহবধূ রোজিনা বেগম (২০) মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার(১৩ এপ্রিল) সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছে। এর আগে গত সোমবার রাতে গায়ে কেরোসিন ঢেলে দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয় স্বামী।

রোজিনার স্বামী আব্দুল্লাহ ওই উপজেলা নিউ পূর্বপাড়া এলাকার মোমিন মিয়ার ছেলে। রোজিনা বেগম পাশ্ববর্তী নীলফামারী জেলার জলঢাকা এলাকার মেয়ে ।

স্থানীয়রা জানান, গত সোমবার রাতে রোজিনা তার স্বামীকে জানায়, যে তার বাড়িতে বেশ কিছু নিকটতম আত্মীয় আসবে। এ কথা শুনে মোবাইলে রোজিনাকে গালাগালি করে। ঘণ্টাখানেক পর বাড়িতে এসেই রোজিনার চুলের মুঠি ধরে মারধর শুরু করে স্বামী অবদুল্লাহ।

পরে ঘরের ভেতর থেকে কেরোসিনের বোতল এনে ঢেলে দেয় রোজিনার শরীরে। আগুন ধরিয়ে দিলে রোজিনার গলাসহ তার শরীরের বেশ কিছু অংশ পুড়ে যায়। রোজিনার চিৎকারে এলাকাবাসী ছুটে আসলে স্বামী আব্দুল্লাহ পালাতে চেষ্টা করে। এ সময় স্থানীরা তাকে আটক করে পুলিশকে খরর দেয়।

পরে রোজিনাকে উদ্ধার করে পাটগ্রাম স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করলে রোজিনা বেগমের শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ পাঠানো হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে পরদিন তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে স্থানান্তর করা হয়।

পাটগ্রাম থানার ওসি মনসুর আলী বলেন, ‘ওই গৃহবধূর স্বামীকে আব্দুল্লাহকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। ওসি আরো জানান, গৃহবধূর মরদেহ রাতে গ্রামের বাড়ি পাটগ্রামে নিয়ে আসবেন বলে পরিবার জানিয়েছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য