obidulদশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে না গিয়ে বিএনপি ভুল করেছে মন্তব্য করে যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সেই হতাশা থেকে আবোল-তাবোল বলছেন দলটির নেতারা।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের প্রথম ‘অবৈধ’ প্রধানমন্ত্রী ছিলেন বলে বিএনপির জ্যেষ্ঠ ভাইস চেয়ারম্যান ও খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমানের বক্তব্যের দিকে ইঙ্গিত দিয়ে তিনি একথা বলেন।

সরকারবিরোধী আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি এখন ইতিহাস দখলের চেষ্টা করছেও বলে মন্তব্য করেন তিনি।  গতকাল রোববার চট্টগ্রাম নগরীর বালুচরা এলাকায় বিআরটিএ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব বলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলির সদস্য ওবায়দুল কাদের।

২১ অগাস্টের গ্রেনেড হামলাসহ কয়েকটি মামলা মাথায় নিয়ে যুক্তরাজ্যে অবস্থান করা বিএনপির জ্যেষ্ঠ ভাইস চেয়ারম্যান তারেক গত ৮ এপ্রিল লন্ডনে এক অনুষ্ঠানে বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের প্রথম ‘অবৈধ প্রধানমন্ত্রী’ ছিলেন।

এর আগে গত ২৫ মার্চ সেখানে আরেকটি অনুষ্ঠানে প্রয়াত সামরিক শাসক জিয়াউর রহমানকে বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি হিসেবে অভিহিত করেন তিনি।

তার বক্তব্য সমর্থন করে ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াও তার স্বামী জিয়াউর রহমানকে বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি বলেন।

এ বিষয়ে যোগাযোগমন্ত্রী বলেন, যারা ইতিহাস নিয়ে কানামাছি খেলতে চায় তারা ইতিহাসের আস্তাকুঁড়ে নিক্ষেপ হয়। সবচেয়ে বড় কথা জনতার একটি আদালত আছে। একটা বড় দল হিসেবে বিএনপি এ ধরনের বক্তব্য দিয়ে ঝুঁকির মধ্যে চলছে।

নির্বাচনে না গিয়ে তারা ভুল করেছে। সেই হতাশা থেকে তারা আবোল তাবোল বলছে।

তারেককে দেশে ফিরিয়ে আনা প্রসঙ্গে কাদের বলেন, রাজনীতি করতে গেলে জেল-জুলুম নির্যাতন সহ্য করতে হয়। এগুলোর মধ্য দিয়েই রাজনীতি করতে হবে।

তার (তারেক রহমান) জেলে যাওয়ার সাহস নেই। বিদেশে বসে কে কী বলবে সেটা নিয়ে মাথা ঘামানোর দরকার নেই। তবে তারা যা বলছে, এটা ষড়যন্ত্র। এর বিচার অচিরেই হবে।

বিআরটিএ পরিদর্শনকালে মন্ত্রী প্রতিষ্ঠানটির চট্টগ্রাম বিভাগের উপপরিচালক জামাল উদ্দিনকে তার অতিরিক্ত দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেয়ার নির্দেশ দেন।
এছাড়া অফিস সহকারী সেলিম রেজা ও মনোয়ার হোসেন এবং এমএলএসএস বাবুল বিশ্বাসকে বদলির নির্দেশ দেন।

এর আগে মন্ত্রী নগরীর কদমতলীতে বিআরটিসি বাস টার্মিনালে বান্দরবান সরকারি কলেজ, বান্দরবান সরকারি মহিলা কলেজ ও বান্দরবান কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের জন্য তিনটি বাস হস্তান্তর করেন।

এসময় বন্দরনগরীতে বিলবোর্ড নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করে আগামী দুই মাসের মধ্যে অবৈধ বিলবোর্ড সরানো না হলে সমন্বিত অভিযান চালানোর ঘোষণা দেন তিনি।

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান ও সীতাকুণ্ডের সংসদ সদস্য দিদারুল আলম এসময় তার সঙ্গে ছিলেন।

যোগযোগমন্ত্রী কদমতলী থেকে বিআরটিএ যাওয়ার পথে জিইসি মোড়ে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ফিটনেসবিহীন একটি বাস ডাম্পিং করার নির্দেশ দেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য