মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটের পর এবার নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদেও ইয়েমেন যুদ্ধবিরোধী প্রস্তাব পাস হয়েছে। প্রতিনিধি পরিষদে ইয়েমেনে সৌদি জোটের সামরিক অভিযানে যুক্তরাষ্ট্রের অংশগ্রহণের বিরুদ্ধে ২৪৭-১৭৫ ভোটে প্রস্তাব গৃহীত হয়। গত মাসে সিনেটে রিপাবলিকান ও ডেমোক্রেটিক সমর্থনে অনুরূপ একটি প্রস্তাব পাস হয়। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ক্ষমতা হ্রাসে দেশটির প্রতিনিধি পরিষদের উদ্যোগকে অভূতপূর্ব মনে করা হচ্ছে। তবে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প হুঁশিয়ার করেছেন, এই প্রস্তাবে তিনি ভেটো দেবেন।

২০১৫ সালে ইয়েমেনের প্রেসিডেন্ট মনসুর হাদিকে উচ্ছেদ করে রাজধানী সানা দখলে নেয় ইরান সমর্থিত শিয়াপন্থী হুথি বিদ্রোহীরা। সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে পালিয়ে যান হাদি। ২০১৫ সালের মার্চে হুথি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে মিত্রদের নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তায় সামরিক অভিযান শুরু করে সৌদি আরব। সৌদি জোটের অভিযান শুরুর পর এ পর্যন্ত নারী-শিশুসহ ১০ হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদে বৃহস্পতিবার পাস হওয়া বিলে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন জোট বাহিনীকে যুক্তরাষ্ট্র আর সহায়তা না দেওয়ার প্রস্তাব রয়েছে। এই উদ্যোগ ডোনাল্ড ট্রাম্পের অন্য কোন দেশের সঙ্গে যুদ্ধে জড়ানোর ক্ষমতা হ্রাসের পাশাপাশি তার পররাষ্ট্রনীতিও সমালোচনার মুখে পড়ল।

কংগ্রেসে উভয় দলের সদস্যরাই সৌদি আরবের সঙ্গে ট্রাম্প প্রশাসনের ঘনিষ্ঠতায় অসন্তুষ্ট। গত বছরের অক্টোবরে সাংবাদিক জামাল খাসোগি হত্যার পর সৌদি নেতৃত্বের প্রতি মার্কিন আইনপ্রণেতাদের সমালোচনা তীব্র হয়ে ওঠে। এই হত্যাকাণ্ডের পেছনে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের হাত থাকার জোরালো অভিযোগ রয়েছে। বৃহস্পতিবার প্রতিনিধি পরিষদে ডেমোক্র্যাট আইনপ্রণেতাদের সঙ্গে ১৪ জন রিপাবলিকানও যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের অংশগ্রহণ বন্ধের পক্ষে অবস্থান নেন। প্রস্তাবে কংগ্রেস প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসনকে ৩০ দিনের মধ্যে ইয়েমেন থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের নির্দেশ দিয়েছে। তবে আল-কায়েদার বিরুদ্ধে মার্কিন অভিযানের ব্যাপারে কোনো নিষেধাজ্ঞা বা নিয়ন্ত্রণ রাখা হয়নি।

ফেব্রুয়ারিতেও প্রতিনিধি পরিষদে প্রস্তাবটি ২৪৮-১৭৭ ভোটে পাস হয়েছিল। তবে ট্রাম্প এতে ভেটো দেন। মার্কিন সংবিধান অনুযায়ী ট্রাম্পের ভেটো উপেক্ষা করে প্রস্তাবটিকে কংগ্রেসে পাস করাতে দুই কক্ষেই দুই তৃতীয়াংশ ভোট নিশ্চিত করার বাধ্যবাধকতা সৃষ্টি হয়। তবে তা হয়ে ওঠেনি। এরআগে মার্চে ৫৪-৪৬ ভোটে সিনেটে প্রস্তাবটি পাস হয়েছিল। দুই কক্ষের কোনটিতেই দুই তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিশ্চিত করতে না পারায় পাস হওয়া প্রস্তাবটি আবারও ট্রাম্পের ভেটোর মুখে পড়তে পারে। পাস হওয়া বিলটি ট্রাম্পের দফতরে পাঠানোর পর এরইমধ্যে হোয়াইট হাউস থেকে বলা হয়েছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এই প্রস্তাবের বিপক্ষে। মার্কিন সামরিক বাহিনীর সর্বাধিনায়ক হিসেবে এই প্রস্তাব তাঁর ক্ষমতার ওপর হস্তক্ষেপ। তাই তিনি প্রস্তাবটিতে ভেটো প্রদান করবেন।

গত বছর ডিসেম্বরে জাতিসংঘের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেনে মানবিক সহায়তার জন্য ৪০০ কোটি মার্কিন ডলার প্রয়োজন। এ বছর মার্চে প্রকাশিত জাতিসংঘের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গৃহযুদ্ধ কবলিত ইয়েমেনে গত বছর প্রতি সপ্তাহে প্রায় ১০০ মানুষ হতাহত হয়েছে। এর মধ্যে এক পঞ্চমাংশই শিশু। জাতিসংঘ শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর জানিয়েছে, ২০১৮ সালে ইয়েমেনে চার হাজার ৮০০ বেসামরিক মাষ নিহত বা আহত হয়েছে। এই সময়ে ৪১০ শিশু নিহত ও ৫৪২ শিশু আহত হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য