দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের বিরামপুরে কাঁচের গ্লাস ভাঙ্গার অপরাধে কাজের মেয়েকে গরম লোহার খুন্তির ছ্যাঁকা দিয়ে নির্যাতনের অভিযোগ।

এই ঘটনায় মেয়েটির খালু আবদুস সামাদ বাদি হয়ে বিরামপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে অভিযুক্ত আকরামুজ্জানকে আসামি করে মামলা করে। অভিযুক্ত আকরামুজ্জামান (৫০)কে আটক করে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে দিনাজপুর কারাগারে পাঠিয়েছে বলে জানান বিরামপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান।

গত বুধবার রাত নয়টার দিকে বিরামপুর পৌর শহরের আনছান মাঠ এলাকায় বিরামপুর মহিলা কলেজের(ইতিহাস) প্রভাষক মো.সামসুল আলম এর বাসায় এই ঘটনা ঘটে।

নির্যাতিতা মেয়ে রিমি আকতার (১৬) বিরামপুর উপজেলার একই এলাকার মৃতঃ মেহের আলীর মেয়ে।

বিরামপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান, বুধবার রাতে কাচেঁর গ্লাস ভাঙ্গার অপরাধে লোহার গরম খুন্তি দিয়ে বাম হাতের ছ্যাঁকা দেয় আকরামুজ্জান। এ সময় নির্যাতিত মেয়েটির আত্মচিৎকারে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ নির্যাতিত মেয়ে রিমিকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায় এবং অভিযুক্ত আকরামুজ্জামানকে গ্রেফতার করে। মেয়েটির খালু আবদুস সামাদ বাদি হয়ে বিরামপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে অভিযুক্ত আকরামুজ্জানকে আসামি করে মামলা করেছে। মামলা নং ০৩।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য