দিনাজপুরঃ দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল আলম বলেছেন, দেশের উন্নয়নের মূল স্রোতধারায় অটিজমসহ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সম্পৃক্ত করতে হবে। দিনাজপুর জেলায় প্রায় ৪ হাজার অটিজম শিশুদের দায়িত্ব সরকারের পাশাপাশি সমাজের বৃত্তশালী ব্যক্তিদের নিতে হবে এবং অটিজম বা প্রতিবন্ধী যাতে না হয় সে ব্যাপারে অভিভাবকদের সচেতন করতে হবে। তিনি আরো বলেন, জেলা প্রতিবন্ধী ফাউন্ডেশনের উন্নয়নে ১ লক্ষ টাকা প্রদান করা হবে।
“সহায়ক প্রযুক্তির ব্যবহার, অটিজম বৈশিষ্ট্য সম্পূর্ণ ব্যক্তির অধিকার”-এবারের প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে ২ এপ্রিল মঙ্গলবার জেলা প্রশাসন কার্যালয় সম্মুখ হতে জেলা প্রশাসন ও জেলা সমাজসেবা কার্যালয় আয়োজিত এবং স্থানীয় বেসরকারি সংস্থা সমূহের সার্বিক সহযোগিতায় বর্ণাঢ্য র‌্যালী, আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথাগুলো বলেন।
র‌্যালীটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে জেলা শিশু একাডেমী মিলনায়তনে গিয়ে সমাপ্ত হয়। সেখানে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ বজলুর রশিদ এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে জেলা প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল আলম নীলা বাতি জ্বালিয়ে আলোচনা সভার উদ্বোধন করেন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা সমাজসেবকা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক ষ্টিফেন মুর্মু। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মোঃ কাজিম উদ্দিন, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ নজমুল ইসলাম, জাতীয় সমাজকল্যাণ পরিষদের নির্বাহী সদস্য মোঃ শফিকুল ইসলাম। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন প্রতিবন্ধী নেত্রী অনামিকা পান্ডে, প্রতিবন্ধী ও অটিস্টিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আবু শাহ নেওয়াজ, মমতা পল্লী উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক মোঃ ইয়াকুব আলী। সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন সমাজসেবা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক ফয়সাল ইবনে রাব্বি ও প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় এবং পূনর্বাসন সংস্থার সাধারণ সম্পাদক বিলকিস আরা ফয়েজ। সভা শেষে প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্য কেন্দ্র কর্তৃক প্রতিবন্ধীদের মাঝে হুইল চেয়ার, ক্রেস, প্রতিবন্ধীদের সহায়ক উপকরণ বিতরণ করেন জেলা প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল আলম।

জেনারেল হাসপাতালঃ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের আয়োজনে সকাল ৯টায় সিভিল সার্জন কার্যালয় সম্মুখ হতে বিশ্ব অটিজম দিবস উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র‌্যালী ও জেনারেল হাসপাতাল মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
“সহায়ক প্রযুক্তির ব্যবহার, অটিজম বৈশিষ্ট্য সম্পূর্ণ ব্যক্তির অধিকার”-এবারের প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে ২ এপ্রিল মঙ্গলবার ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ নজমুল ইসলাম বর্ণাঢ্য র‌্যালী উদ্বোধন করেন। বর্ণাঢ্য র‌্যালীটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে জেনারেল হাসপাতাল মিলনায়তনে গিয়ে সমাপ্ত হয়। সেখানে ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ নজমুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত তত্ত্বাবধায়ক বিশিষ্ট শিশু চিকিৎসক ডাঃ রইছ উদ্দীন। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন শিশু বিশেষজ্ঞ ডাঃ মশিউর রহমান, আবাসিক মেডিকেল অফিসার পারভেজ সোহেল রানা, গাইনী কনসালটেন্ট ডাঃ ইসরাত শারমিন, অবসবিদ ডাঃ ফাল্গুনী চক্রবর্তী, সিনিয়র অর্থপেডিক বিশেষজ্ঞ ডাঃ খতিবুদ্দিন, সিনিয়র কনসলটেন্ট (এন্যাসথেসিয়া) ডাঃ নির্মল চন্দ্র রায় ও চক্ষু বিশেষজ্ঞ মোঃ আশরাফুল ইসলাম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সিনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার মোঃ সাইফুল ইসলাম। সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন ওয়ার্ড মাষ্টার মিহির কুমার রায়। আলোচনা সভায় বক্তবারা বলেন, বর্তমান সরকার প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অর্থনৈতিক ও সমাজিক নিরাপত্তা ঝুঁকি বিবেচনায় নিয়ে তাদের কল্যাণে বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহণ করে যাচ্ছেন। ইত্যিমধ্যে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সামজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অধিকার ও সুরক্ষা, আইন -২০১৩ ও নিউরো ডেভেলপমেন্ট প্রতিবন্ধী সুরোক্ষা ট্রাস্ট আইন-২০১৩ প্রনোয়ন এবং এ সংক্রান্ত বিধিমালা প্রনোয়ন করা হয়েছে।

দিনাজপুর নার্সিং ইনস্টিটিউটনঃ “সহায়ক প্রযুক্তির ব্যবহার, অটিজম বৈশিষ্ট্য সম্পূর্ণ ব্যক্তির অধিকার”-এবারের প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে ২ এপ্রিল মঙ্গলবার জেনারেল হাসপাতাল সংলগ্ন জেলা নার্সিং ইনস্টিটিউট কার্যালয়ের সম্মুখ হতে দিনাজপুর নার্সিং ইনস্টিটিউটের ভারপ্রাপ্ত ইনচার্জ গেম রোকেয়া সিদ্দিকা, ইন্সট্রাক্টর আলেজা খাতুন, আমিনা খাতুন (২) এর নেতৃত্বে নার্সিং ইনস্টিটিউটের ছাত্রীরা বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করে। র‌্যালীটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে জেলা নাসিং ইনস্টিটিউট কার্যালয়ের হলরুমে আলোচনা সভায় মিলিত হয়। আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, প্রতিবন্ধী ও অটিস্টিক ব্যক্তিদের প্রতি সমাজের নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গী পরিবর্তনের পাশাপাশি তাদের মানসিক উন্নয়ন ও সমৃদ্ধ জীবন গঠনের পথকে আরো প্রসারিত করতে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। উপযুক্ত শিক্ষা ও প্রশিক্ষন পেলে অটিস্টিক ব্যক্তিরাও রাষ্ট্রের উন্নয়ন অবদান রাখতে সক্ষম হবে। এজন্য শিক্ষা ও প্রশিক্ষনের পাশাপাশি তাদের পারিবারিক ও সমাজিকভাবে সহায়তা প্রদান অত্যন্ত জরুরী।

বোচাগঞ্জঃ আজ ২এপ্রিল মঙ্গলবার দিনাজপুরের বোচাগঞ্জে বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস র‌্যালী ও আলোচনা সভার মধ্যে দিয়ে উদযাপন করেছে সেতাবগঞ্জ বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ও অটিষ্টিক বিদ্যালয়। সকাল ১০টায় সেতাবগঞ্জ বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ও অটিষ্টিক বিদ্যালয় হতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ফকরুল হাসান এর নেতৃত্বে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে বিদ্যালয় হলরুমে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোছাঃ নিলুফার ইয়াসমিনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় মিলিত হয়। সভায় সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার যথাক্রমে ইবনে মাসুদ রানা, মোঃ দেলোয়ার হোসেন, মোঃ কামরুল হাসান, বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মোঃ শামীম আজাদ, প্রাইমারী শিক্ষক সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোঃ আব্দুস সামাদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। এসময় বোচাগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোঃ শামসুল আলম, সেতাবগঞ্জ ডেন্ট্রিষ্টের চিকিৎসক ডাঃ মোঃ সেলিম, সেতাবগঞ্জ ডিবেটিং ক্লাবের সভাপতি মোঃ মাহাবুব আলম সহ বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য