মাসুদ রানা পলক, ঠাকুরগাঁওঃ ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার চৌরাস্তা বাজারে দুটি মার্কেটের ১০টি ঔষধ দোকানে অভিযান পরিচালনা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

রবিবার দুপুর ২টার সময় ১০টি ঔষধ ব্যবসায়ীকে সাড়ে ২৪ হাজার টাকা জরিমানা করেন এক্সিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদুর রহমান মাসুদ। এ সময় জেলার ড্রাগ সুপারসহ বালিয়াডাঙ্গী থানার এসআই ইসহাক আলীর সঙ্গীয় একটি পুলিশ ফোর্স উপস্থিত ছিল।

ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার পরপরই ঔষধ বিক্রয় বন্ধসহ দোকান বন্ধ করে দেয় ঔষধ ব্যবসায়ীরা। তাদের দাবী তুচ্ছ ভুলগুলো ধরে তাদের জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। বাংলাদেশ কেমিস্টস এন্ড ড্রাগিস্টস সমিতি (বিসিডিএস)এর জেলার নেতাদের নিয়ে বিকাল সাড়ে ৫টায় আলোচনায় বসেন ঔষধ ব্যবসায়ীরা।

আলোচনা শেষে বাংলাদেশ কেমিস্টস এন্ড ড্রাগিস্টস সমিতি (বিসিডিএস) এর ঠাকুরগাঁও জেলার সভাপতি আজিজুর রহমান জানান, উপজেলা প্রশাসনের লোকজন স্থানীয় ঔষধ ব্যবসায়ীদের সাথে আলোচনায় বসে বিষয়টি সমাধান না করা পর্যন্ত আগামী ২ দিন বালিয়াডাঙ্গী উপজেলায় সব ঔষধ ব্যবসায়ীর দোকান বন্ধ থাকবে। তবে দুই দিনের মধ্যে বিষয়টি সুরাহা না হলে পরবর্তীতে পুরো জেলায় ঔষধ বিক্রি বন্ধসহ কঠোর কর্মসূচীর হুশিয়ারী দেন তারা।

এক্সিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদুর রহমান মাসুদ বলেন, মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ, সময় থাকতে ড্রাগ লাইসেন্স নবায়ন না, নিয়ম না মেনে ঔষধ বিক্রি করেছে এমন ঔষধ ব্যবসায়ীদের সতর্কের পাশাপাশি ১০ জনকে সাড়ে ২৪ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। আইনের উর্দ্ধে কেউ নয়, আইন ভঙ্গ করলে, শাস্তি তাকে পেতেই হবে।

“দোকান বন্ধ করে দেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, স্থানীয় ব্যবসায়ীদের নিয়ে আগামীকাল সোমবার (০১এপ্রিল) আলোচনায় বসে বিষয়টির সমাধান করা হবে।”

ঔষধ দোকান বন্ধের বিষয়ে ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক ড. কামরুজ্জামান সেলিমের মুঠোফোনে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, ভ্রাম্যমান পরিচালনার সময় অপরাধ শনাক্ত হলে, শাস্তি হবে, এটাই স্বাভাবিক। তবে ঔষধ দোকান বন্ধের বিষয়টি আমি অবগত নয়।

এর আগে সকাল সাড়ে ১১টার সময় তীরনই নদীতে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনের অভিযোগ দুটি ড্রেজার মেশিন আটক করে ভ্রাম্যমান আদালত।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য