উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতা কিম জং উনের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক বজায় রাখার স্বার্থে গত সপ্তাহে দেশটির ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞা আরোপের পথ থেকে সরে এসেছেন বলে জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

শুক্রবার ফ্লোরিডার অবকাশযাপন কেন্দ্রে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথোপকথনে তিনি একথা জানান বলে খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

উত্তর কোরিয়ার জনগণ এমনিতেই ‘যথেষ্ট্র যন্ত্রণার’ মধ্যে আছে বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।

“আমার মনে হয় না এই সময়ে তাদের ওপর আরও নিষেধাজ্ঞার প্রয়োজন আছে। এর অর্থ এই নয় যে- পরে আর নিষেধাজ্ঞা দেয়া হবে না,” বলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

ভিয়েতনামে গত মাসেই দ্বিতীয় শীর্ষ সম্মেলনে মিলিত হয়েছিলেন ট্রাম্প-কিম। দুই পক্ষের অনমনীয় মনোভাবের কারণে সেটি কোনো সমঝোতা ছাড়াই শেষ হয়।

বৈঠকে পিয়ংইয়ং কিছু নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের বিনিময়ে পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচি শিথিল করার প্রস্তাব দিয়েছিল। ওয়াশিংটন তাতে রাজি না হওয়ায় চুক্তি ছাড়াই হ্যানয় থেকে দেশে ফিরে যান ট্রাম্প ও কিম।

যুক্তরাষ্ট্র এর পর থেকে উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে ফের আলোচনা শুরুর তাগিদ দেখালেও পিয়ংইয়ং বলছে, তারা ২০১৭ সাল থেকে বন্ধ রাখা ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ও পারমাণবিক অস্ত্রের পরীক্ষা ফের শুরু করার চিন্তা করছে।

মার্কিন অর্থ মন্ত্রণালয় গত সপ্তাহে উত্তর কোরিয়ার ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞা আরোপের প্রস্তুতি নিলেও তাতে বাধ সাধেন ট্রাম্প।

“উত্তর কোরিয়ায় তারা (জনগণ) এমনিতেই খুব কষ্ট ভোগ করছে। তারা কষ্টকর সময় পার করছে,” ফ্লোরিডার অবকাশযাপন কেন্দ্রে সাংবাদিকদের এমনটাই বলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

কিমের সঙ্গে সুসম্পর্কের ওপরও জোর দেন তিনি।

“আমার মনে হয় ওই সম্পর্ক বজায় রাখাটা বেশ গুরুত্বপূর্ণ, অন্তত যতক্ষণ পারা যায়,” ভাষ্য ট্রাম্পের।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য