অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেড বক্স অফিসের এক কর্মী দেশটির অ্যাবোরিজিনাল আদিবাসীদের কাছে টিকিট বিক্রি করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিল। ২০১৮ সালের জুলাইতে এক ফুটবল ম্যাচে এই ঘটনা ঘটে বলে সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন সেই কর্মী। ওই নারী কর্মীর দাবি কর্তৃপক্ষের আদেশে এমন কাজ করেছিলেন তিনি। তবে অ্যাডিলড ওভাল কর্তৃপক্ষ এই ঘটনায় ক্ষমা প্রার্থনা করে দাবি করেছে, পুলিশের নির্দেশনার ভুল ব্যাখ্যা করেছিলেন ওই কর্মী।

২০১৮ সালের ১২ জুলাই অ্যাডিলেড ও গেলাংয়ের মধ্যকার এক ফুটবল ম্যাচের টিকিট বিক্রির সময় এই ঘটনা ঘটে। ওইদিন প্রায় এক ঘণ্টা টিকিট বিক্রি বন্ধ রেখেছিল কর্তৃপক্ষ। সম্প্রতি এবিসি নিউজে-এর কাছে টিকিট বিক্রিতে নিয়োজিত এক কর্মী দাবি করেছেন, টিকিট কিনতে আসা মানুষদের তিনি বলেছিলেন সব টিকিট বিক্রি শেষ হয়ে গেছে।

ওই নারী কর্মীর নিয়োগ দাতা প্রতিষ্ঠান ম্যাকআর্থার রিক্রুটমেন্ট এক বিবৃতিতে দাবি করেছে, টিকিট অফিসের কর্মী পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর নির্দেশনা অনুসরণ করেছিলেন। প্রায় এক ঘণ্টা ধরে টিকিট বন্ধ রেখেছিলেন তিনি। ওই সময়ে পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনী পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়। ঘটনার পরে নিরাপত্তা কর্মীরা বক্স অফিসে ফিরে এসে নির্দিষ্ট মানুষদের কাছে টিকিট বিক্রি করতে নিষেধ করে দেয়।

ওই নারী কর্মীর দাবি, তিনি ক্রেতাদের কাছে মিথ্যা বলেছিলেন যে টিকিট শেষ হয়ে গেছে। এই ঘটনার পরের দিনেই তিনি পদত্যাগ করেন।

সাউথ অস্ট্রেলিয়া পুলিশের এক মুখপাত্র বিবিসিকে বলেছেন, অ্যাডিলেড ওভাল কতৃপক্ষ সেদিন পুলিশের কাছে সহায়তা চেয়েছিল। তারা জানিয়েছিল বেশ কয়েকজন স্ট্রেডিয়ামে প্রবেশের চেষ্টা করছে বা টিকিট কেনার চেষ্টা করছে। পুলিশ কখনোই টিকিট বিক্রেতাদের কোনও নির্দেশনা দেয়নি।

অবশ্য অস্ট্রেলিয়ায় বর্ণবৈষম্যের অভিযোগ এটাই প্রথম নয়। এক মাসেরও কম সময় আগে দেশটির অ্যাকর হোটেল জানিয়েছে, তাদের এক কর্মীর বিরুদ্ধে বর্ণবৈষম্যের অভিযোগ ওঠার পর তা তদন্ত করে দেখছে তারা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য