প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার ‘সম্ভাব্য হস্তক্ষেপ’ নিয়ে স্পেশাল কাউন্সেল রবার্ট মুলারের সম্পূর্ণ ও সম্পাদিত তদন্ত প্রতিবেদন ‘এপ্রিলের মাঝামাঝি’ সময়ের মধ্যেই মার্কিন কংগ্রেসকে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাটর্নি জেনারেল উইলিয়াম বার।

২২ মাসের তদন্ত শেষে গত সপ্তাহে সাবেক এফবিআই পরিচালক মুলার ওই তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছিলেন।

একদিন পরই প্রতিবেদনটির চার পৃষ্ঠার সারসংক্ষেপ প্রকাশ করেছিলেন বার; যা নিয়ে আপত্তি তুলে ডেমোক্রেট সাংসদরা পুরো প্রতিবেদনটিই প্রকাশের জোর দাবি জানান।

শুক্রবার মার্কিন অ্যাটর্নি জেনারেল প্রতিনিধি পরিষদের শীর্ষ নেতা ও সিনেটের বিচারবিভাগীয় কমিটিকে লেখা এক চিঠিতে এপ্রিলের মাঝামাঝি পুরো প্রতিবেদনটি কংগ্রেসকে দেয়ার আশাবাদ জানান বলে খবর বিবিসির।

“এর আগে হবে না,” মুলারের ৪০০ পৃষ্ঠার প্রতিবেদনটির সম্পাদনা চলছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

রোববার অ্যাটর্নি জেনারেলের সারসংক্ষেপ প্রকাশের পরদিনই কংগ্রেসনাল কমিটির ৬ ডেমোক্রেট প্রধান বারের কাছে লেখা এক চিঠিতে অসম্পাদিত অবস্থাতেই প্রতিবেদনটির সম্পূর্ণ অংশ ২ এপ্রিলের মধ্যে প্রকাশের দাবি জানিয়েছিলেন।

“প্রত্যেকেই শিগগিরই প্রতিবেদনটি পড়ার সুযোগ পাবেন,” কংগ্রেসনাল কমিটির প্রধানদের কাছে লেখা চিঠিতে বার এমনটাই লিখেছেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।

মুলারের তদন্ত প্রতিবেদনের আইনগত যেসব সংবেদনশীল উপাদান আছে, সেগুলোরই সম্পাদনা চলছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

স্পেশাল কাউন্সেলের এ প্রতিবেদনে ২০১৬-র প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান শিবির ও মস্কোর মধ্যে ‘আঁতাতের’ প্রমাণ পাওয়া যায়নি বলে সারসংক্ষেপেই উল্লেখ করেছিলেন বার।

এ ‘সম্ভাব্য আঁতাত’ নিয়ে মার্কিন কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা এফবিআইয়ের তদন্তে ট্রাম্প বাধা সৃষ্টি করেছিলেন কিনা, মুলারের তা খতিয়ে দেখার কথা থাকলেও এ বিষয়ে তার প্রতিবেদনে সুস্পষ্ট জবাব পাওয়া যায়নি।

রোববার প্রকাশিত বারের সারসংক্ষেপে বলা হয়েছে, মুলারের প্রতিবেদনে এমন কোনো প্রমাণের উল্লেখ নেই, যা দিয়ে তদন্তে বাধা সৃষ্টির অপরাধে প্রেসিডেন্টকে অভিযুক্ত করা যেতে পারে।

২২ মাসের এ তদন্তের মধ্যেই সাবেক এফবিআই পরিচালক মুলার ও তার দল ট্রাম্পের সাবেক ছয় সহযোগী ও একাধিক রুশ নাগরিকসহ ৩৪ জনের জালিয়াতি, কর ফাঁকি, মুদ্রাপাচার, মিথ্যা বলাসহ বিভিন্ন অপরাধ উন্মোচিত করেছেন।

যদিও এগুলোর কোনোটাই ‘মস্কো-ট্রাম্প আঁতাতের’ সঙ্গে সম্পর্কিত নয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য