যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভকে সুদের হার কমানোর আহ্বান জানিয়েছে হোয়াইট হাউস। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তার অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ল্যারি কুডলো মনে করেন, বর্ধিত সুদের হারের কারণেই যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতির গতি কমে গেছে। তবে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চীনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের পাল্টাপাল্টি শুল্ক আরোপের ফলেই মার্কিন অর্থনীতির গতি কমে গেছে।

ফেডারেল রিজার্ভের সঙ্গে হোয়াইট হাউসের অব্যাহত মতবিরোধের সর্বশেষ উদাহরণ ট্রাম্পের সাম্প্রতিক এক মন্তব্য। গত ২৯ মার্চ তিনি মন্তব্য করেন, সুদের হার বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেডারেল রিজার্ভ ভুল করেছে। তারা ভুল সময়ে তারল্য নিয়ন্ত্রণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এতে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতি ও শেয়ার বাজার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বোর্ড অব গভর্নরসের কোনও সদস্য তাৎক্ষণিকভাবে এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য না করলেও বোর্ডের স্বতন্ত্র সদস্য স্টিফেন মুর মুখ খুলেছেন। তার জবাব, ‘ফেডারেল রিজার্ভ একটি স্বাধীন কেন্দ্রীয় ব্যাংক। তারা তা-ই করবে, যা তারা ঠিক মনে করে।’

মুর যুক্তরাষ্ট্রের আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে নির্বাচনে একজন সম্ভাব্য প্রার্থী। ফক্স নিউজকে তিনি বলেন, গত ডিসেম্বরে সুদের হার বৃদ্ধির যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল তা প্রত্যাহারের বিষয়টি বিবেচনা করে দেখা যেতে পারে। কিন্তু কুডলো যে সুদের হার আধা শতাংশ কমাতে বলছেন তা তিনি সমর্থন করেন না।

ট্রাম্প ও কুডলো চান ফেডারেল রিজার্ভ সুদের হার আধা শতাংশ কমাক এবং বন্ড বিক্রি বন্ধ না করুক। এতে বিশ্বজুড়ে মার্কিন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোর অবস্থান ভালো হবে। ল্যারি কুডলো শুক্রবার মার্কিন টেলিভিশন চ্যানেল সিএনবিসিকে বলেছেন, ‘এটা আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি। এটা তারও (ট্রাম্পের) চাওয়া, আমারও চাওয়া।’

এ সপ্তাহেই ফেডারেল রিজার্ভের অন্তত পাঁচ জন কর্মকর্তা যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতি প্রসঙ্গে কথা বলেছেন। কিন্তু তাদের কেউই সুদের হার কমানোর বিষয়ে কোনও পদক্ষেপ নেওয়ার প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করেননি। যুক্তরাষ্ট্রের আগের সরকারগুলো দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নীতি নির্ধারণী সিদ্ধান্তের বিষয়ে মন্তব্য না করার নীতি মেনে চলতো। কিন্তু ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর থেকে সংস্থাটির সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে বারবার আপত্তি জানিয়ে আসছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য