যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটলে ব্যস্ত সড়কে দুটি মোটরগাড়ি ও একটি বাসে বন্দুকধারীর গুলি এবং তার ছিনিয়ে নেওয়া গাড়ির সঙ্গে অন্য একটি গাড়ির সংঘর্ষে দুই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন।

বুধবার সিয়াটলের উত্তরপূর্বাংশের এ ঘটনায় আরও দুইজন গুরুতর আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

পুলিশের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সন্দেহভাজন বন্দুকধারী প্রথমে ব্যস্ত সড়কের মোড়ে একটি মোটরগাড়ির নারী চালকের ওপর গুলি চালান; এরপর সড়কে নেমে একটি বাসের দিকে গুলি ছোড়েন।

শরীরে গুলি লাগলেও বাসচালক তাৎক্ষণিকভাবে যাত্রীসহ বাসটি ঘুরিয়ে বন্দুকধারীর আওতার বাইরে চলে যান।

৫৩ বছর বয়সী গুলিবিদ্ধ এ বাসচালকের নাম এরিক স্টার্ক বলে পরে জানিয়েছে সিয়াটল টাইমসসহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম।

বাসের পর সন্দেহভাজন বন্দুকধারী একটি টয়োটা গাড়িতে গুলি চালিয়ে এর চালককে হত্যা করেন।

পুলিশ ঘটনাস্থলে এলে বন্দুকধারী টয়োটা গাড়িটি নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন এবং নিকটবর্তী অন্য একটি গাড়িকে ধাক্কা দেন। এতে অপর গাড়িটির চালকের মৃত্যু হয়।

কর্মকর্তারা পরে সন্দেহভাজন বন্দুকধারীকে আটক করেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

কেন এ হামলার ঘটনা ঘটেছে তার ব্যাখ্যা দেয়নি কর্তৃপক্ষ। বন্দুকধারী কী ধরনের অস্ত্র ব্যবহার করেছে তাও জানায়নি।

“আমাদের বিশ্বাস একজন, একা একজন বিচ্ছিন্ন, কাণ্ডজ্ঞানহীন এ কর্মকাণ্ডে জড়িত; সন্দেহভাজন ব্যক্তি যা করেছেন তাতে আমরা ক্ষুব্ধ,” এনবিসি নিউজকে বলেছেন সিয়াটলের সহকারী পুলিশ প্রধান মার্ক গার্থ গ্রিন।

সন্দেহভাজন ওই বন্দুকধারীর নাম-পরিচয় জানা যায়নি। সশস্ত্র প্রহরার মধ্যে সিয়াটলের একটি হাসপাতালে তার চিকিৎসা চলছে। বন্দুকধারীর আঘাত ‘জীবন সংশয়ী’ নয় বলে জানিয়েছে পুলিশ।

গুলি ও বন্দুকধারীর ছিনিয়ে নেয়া গাড়ির সঙ্গে সংঘর্ষে যে দুই গাড়িচালক নিহত হয়েছেন, তারা দুজনই পুরুষ বলে জানালেও পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে তাদের নাম-পরিচয় বলতে পারেনি।

বন্দুকধারী সিয়াটলের বাসিন্দা, তার বয়স ৩৩ বছর বলে পরে জানিয়েছে সিয়াটল টাইমস। নিহত দুজনের বয়স যথাক্রমে ৫০ ও ৭০, জানিয়েছে তারা।

কিং কাউন্টির মেট্রো ট্রানজিট কর্তৃপক্ষ টুইটারে জানিয়েছে, গুলিতে আহত বাসচালকই হামলার বিষয়ে জরুরি সংকেত দেন; বাসটির ১২ যাত্রীর কেউই আহত হয়নি বলেও জানিয়েছে তারা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য