নীলফামারী সদর আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেছেন, ‘কোচিং নির্ভর না হয়ে পাঠ্যবইয়ের পুরোটা পড়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন। তাতে জ্ঞান বাড়বে। কারণ কোচিংয়ে সব কিছু পাওয়া যায় না। আর যিনি বইটি তৈরি করেছেন সেটি জ্ঞান অর্জনের জন্য তৈরি করেছেন। অর্ধেক পড়ার জন্য বইটি শিক্ষার্থীদের হাতে দেননি।’

বুধবার (২৭ মার্চ) দুপুরে নীলফামারী সরকারি কলেজে সম্মান প্রথম বর্ষের (২০১৮-১৯) ছাত্র/ছাত্রীদের নবীনবরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই কথা বলেন।

আসাদুজ্জামান নূর বলেন, ‘শিক্ষা শুধু প্রবীণদের কাছেই পাওয়া যায় না, নবীনদের কাছেও পাওয়া যায়। পুঁথিগত বিদ্যায় নির্ভরশীল না হয়ে, বাইরের বই পড়ুন, গল্পের বই পড়ুন। নিজেকে একজন ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে তুলুন।’

তিনি বলেন, ‘ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সম্প্রতি একটি অনুষ্ঠানে বলেছেন, গুগল সার্চ করে শুধু তথ্য পাওয়া, সেখানে জ্ঞান অর্জন করা যায় না। আমরা এমন শিক্ষা অর্জন করেছি, পাশের মানুষটি না খেয়ে থাকলেও খবর রাখি না। আল্লাহ রাব্বুল আল-আমিন বলেছেন, আপনি যতই ঈমানদার হউন না কেন নামাজ পর্যন্ত কবুল হবে না। পৃথিবীতে যত দানশীল মানুষ আছে তার সবাই পাশ্চাত্য দেশের অধিবাসী। কিন্ত তারাই আমাদের চেয়ে দানশীল। এটি সুশিক্ষার ফসল। আমরা একজন মানুষ না খেয়ে থাকলে ফিরে তাকাই না। এমনকি বাড়ির কাজের মানুষটিরও খবর রাখি না। অথচ একটি ভালো সিনেমা দেখলে কেঁদে ফেলি।’

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আমরা মানবিক সমাজ গড়তে চাই। তোমরা এমন শিক্ষা গ্রহণ করো যার সব কিছু নিজের মঙ্গলের জন্য, মানুষের মঙ্গলের জন্য। প্রতিভার পাশাপাশি পরিশ্রম করতে হবে। তাহলে ভালো মানুষ হতে পারবে। বাবা মায়ের পরে শিক্ষকের স্থান, তাদের সম্মান দিতে হবে।’

কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি কলেজের একটি হলরুমের বঙ্গবন্ধুর নামে নামকরণের প্রস্তাব করায় এই জনপ্রতিনিধি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ আলাদা করা যাবে না। যার ডাকে থ্রি নট থ্রি রাইফেল দিয়ে যে মুক্তিযোদ্ধারা জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছে। তিনি কিন্তু একজন সামান্য মানুষ নন। কাজেই তার নাম এত ছোট করে দেখার সুযোগ নেই। তাছাড়া একটি বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন আছে তাদের অনুমোদন ছাড়া এটি কখনও সম্ভব না।’

কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর দেবী প্রসাদ রায়ের সভাপতিত্বে নবীনবরণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরিন, পুলিশ সুপার (ভারপ্রাপ্ত) এবিএম আতিকুর রহমান, কলেজের উপাধ্যক্ষ মাহবুবার রহমান ভূইয়া, কলেজের ইতিহাস বিভাগের বিভাগীয় প্রধান তারিকুল আলম, শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম, নীলফামারী পৌরসভার মেয়র দেওয়ান কামাল আহমেদ, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুজার রহমান, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মুসফিকুল ইসলাম রিন্টু, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মনিরুল হাসান শাহ আপেল, সাধারণ সম্পাদক মাসুদ সরকার প্রমুখ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য