মাসুদ রানা পলক, ঠাকুরগাঁওঃ ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে রাস্তা পাকাকরণ কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। কাজ শেষ হতে না হতেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল দপ্তরে অভিযোগ করেও কাজ হয়নি বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

তবে এ ব্যাপারে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল দপ্তর বলছে রাস্তা পাকাকরণ কাজে কোনো রকম অনিয়ম হয়নি। নিবিড় তদারকির মাধ্যমে কাজটি সম্পন্ন করা হয়েছে।

জানা যায়, পীরগঞ্জ উপজেলার সেনুয়া চৌরাস্তা থেকে কাঁচন বুড়ার দোকান পর্যন্ত ই-টেন্ডারের মাধ্যমে দুই কিলোমিটার রাস্তা ৫৪ লাখ ১৪ হাজার ৪৫০ টাকা ব্যয়ে পাকাকরণের কাজ পায় মর্ডান এন্টারপ্রাইজ নামে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। কাজ শুরু হয় গত ১৩ ডিসেম্বর। নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে তাড়াহুড়া করে ২২ মার্চ কাজ সম্পন্ন করে ফেলে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানটি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, রাস্তার দু-ধারে বেশিরভাগ স্থানে বিটুমিন মিশ্রিত পাথর পরিমাণের চেয়ে কম ব্যবহার করা হয়েছে। বিভিন্ন স্থানে ঠিকমতো রোলিংও করা হয়নি। যার ফলে রাস্তায় চলাচলের সময় গাড়ির চাকার সাথে উঠে আসছে কার্পেটিং। নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করায় ৪-৫ দিনের মাথায় যেখানে সেখানে কার্পেটিং উঠে গেছে।

সেনুয়া গ্রামের আবু তারেক জানায়, প্রাইম কোড করার সময় ব্রাশ দিয়ে পরিষ্কার করার কথা থাকলেও ঠিকমতো পরিষ্কার করা হয়নি। ময়লা আবর্জনার মধ্যেই প্রাইম কোড দেওয়া হয়েছে। রিপন নামে এক পথচারী জানান, রাস্তা পাকাকরণ কাজে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করা হয়েছে।

যার ফলে কাজ শেষ হতে না হতেই কার্পেটিং উঠে আসছে। আমরা এলাকার কয়েকজন স্থানীয় সরকার প্রকৌশল দপ্তরসহ বিভিন্ন জায়গায় মৌখিক অভিযোগ করেছি। কোনো লাভ হয়নি। ঠিকাদার নিজের ইচ্ছে মতোই কাজ করেছেন। এখন যার ভোগান্তি পোহাতে হবে এলাকার লোকজনসহ পথচারীদের।

উপজেলা প্রকৌশলী ইসমাইল হোসেন বলেন, কাজ শেষ হওয়ার পর আমি পরিদর্শন করেছি। কই আমি তো কোনো কিছু দেখলাম না। সব ঠিক আছে। নিয়ম মেনেই রাস্তার কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য