দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুর জেলা আহলে হাদীস জামে মসজিদের (ওয়াকফে মোহাম্মদী ওয়াকফ এস্টেট) নামে ওয়াকফকৃত বেদখল হওয়া জমি পুনরুদ্ধারের দাবীতে মানববন্ধন শেষে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে মসজিদ কমিটি ও মসজিদের সাধারণ মুসল্লিরা।

সোমবার (২৫ মার্চ) সকাল ১১টায় জেলা আহলে হাদীস মসজিদ প্রাঙ্গন থেকে কয়েক শত মুসল্লি দিনাজপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে গিয়ে মানববন্ধন পালন করে। মাববন্ধন শেষে তারা জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারী দিনাজপুর শহরের প্রানকেন্দ্র স্টেশন রোডে অবস্থিত জেলা আহলে হাদীস মসজিদের নামে ওয়াকফকৃত সম্পত্তি নিলামে ডেকে নিয়ে কোন নোটিশ ছাড়াই বুলডোজার দিয়ে ১৮টি দোকান ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিয়েছে প্রশাসন।

ওয়াকফ সম্পত্তি হস্তান্তরিত হতে হলে ওয়াকফ প্রশাসকের অনুমতি লাগে। অথচ এ ক্ষেত্রে অনুমতি ছাড়াই উক্ত জমি দখলে নিয়ে নেয়। এ ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে আদালতের নির্দেশ বাস্তবায়ন করেছেন বলে জানান সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আরিফুল ইসলাম।

উক্ত ওয়াকফকৃত সম্পদ পুনরুদ্ধারে মসজিদ কমিটি গত ২১-০৩-২০১৯ ইং তারিখ যুগ্ম জেলা জজ দিনাজপুর-১ আদালতে মামলা করলে শুনানী অন্তে বিজ্ঞ আদালত বিবাদী ওয়াহিদুজ্জামানকে ১০ কার্য দিবসের মধ্যে নির্মাণ কাযক্রমের উপর কেন নিষেধাঙ্গা দেয়া হবে না তার কারণ দর্শাইতে বলা হয়েছে। মামলা নম্বর ২১/১৯ (অন্য) কিন্তু আদালতের কারণ দর্শানো নোটিশ পাওয়ার পরও ওই জমিতে নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, ১৯৫৮ সালে দিনাজপুর শহরের প্রাননাথপুর মৌজার সিএস ৫৭৬ খতিয়ানের ৬৭৯৭ দাগ হতে ২৬ শতক জমি ওয়াকফ করে দেন কিছু ধর্মপ্রান মুসল্লি। সেই ২৬ শতক জমির মধ্যে কিছু জমির উপর মসজিদ, মাদরাসা ও এতিমখানা নির্মাণ এবং ১৭ শতক জমির উপর দোকান নির্মাণ করা হয়।

কিন্তু তৎকালীন মোতয়াল্লীদের সঠিক ব্যবস্থাপনা না থাকায় এবং তাদের কারো আত্মসাতের প্রবনতা থাকায় তাদের ওয়ারিশরা খাজনা, খারিজ, রেকর্ড নিজেদের নামে করে নেন এবং তা বন্ধক রেখে ঋণ গ্রহণ করেন। ঋণ পরিশোধ না করায় উক্ত ওয়াকফকৃত জমি নিলামে উঠে। ওই জমি হাইকোর্টের এক আইনজীবী দিনাজপুর শহরের ঈদগাহবস্তী নিবাসী নুরুল হুদার পুত্র ওয়াহিদুজ্জামান নিলামে ডেকে নিয়ে রিসিভারের মাধ্যমে দখলে নেন।

স্মারকলিপিতে বলা আরো হয়, ওয়াকফকৃত সম্পদ হস্তান্তরে ওয়াকফ প্রশাসকের অনমোদন না নেয়ায় এবং মুসল্লীরা ওয়াকিবহাল না হওয়ায় উক্ত জমি হঠাৎ বেদখল হওয়ায় মুসল্লীরা ফুসে উঠে। মসজিদের নামে ওয়াকফকৃত জমি ফিরে পেতে আইনী ব্যবস্থা নিতে কমিটিকে চাপও প্রয়োগ করেন মুসল্লীরা। ধর্মপ্রান সাধারণ মুসল্লীদের বক্তব্য, যে মসজিদের প্রধান উপদেষ্টা স্বয়ং হুইপ ইকবালুর রহিম, উপদেষ্টা জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র, সেখানে কিভাবে উক্ত ওয়াকফকৃত সম্পদ বেদখল হয়ে গেল?

স্মারকলিপিতে মসজিদ, মাদরাসা ও এতিমখানার স্বার্থে ওয়াকফে মোহাম্মদী ওয়াকফ এস্টেটের জমি পুনরুদ্ধারে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানানো হয়।

মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদানের সময় দিনাজপুর জেলা আহলে হাদীস জামে মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক আফতাব উদ্দীন আহম্মেদ, মুসল্লি মিজানুর রহমান, মনসুর আলী, ওবায়দুর রহমান, আব্দুল মালেক, শফিকুল আলম, এ্যাড. আমিনুল হক পুতুল, সৈয়দ আলী, শামসুল ইসলাম, রাজিউল কবির মিলু, মো. মজিবর রহমান, মোতাহার আলী, তোসাদ্দেক হোসেন, সাইদুর রহমান, আব্দুস সালাম, রাশেদুল ইসলাম রিপন, মৌলভী আমিনুল ইসলামসহ কয়েক শত মুসল্লি উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য