লালমনিরহাটে হাসপাতাল Hospitalআজিজুল ইসলাম বারী,লালমনিরহাট প্রতিনিধি: লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোজিনা বেগম (২০) নামে এক প্রসূতি মায়ের মৃত্যুর ঘটনায় ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) বিকেলে ঘটনার প্রকৃত কারণ অনুসন্ধানে এ তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। এর আগে দুপুরে গাইনী ও অবশ ওয়ার্ডে ওই প্রসূতির মৃত্যু হয়। মৃত প্রসূতি রোজিনা বেগম কালীগঞ্জ উপজেলার কাশিরাম গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের স্ত্রী।

মৃত প্রসূতির পরিবার ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, প্রসব বেদনা নিয়ে গত মঙ্গলবার সকাল ১০ টার দিকে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে গাইনী ও অবশ ওয়ার্ডে ভর্তি হন রোজিনা বেগম। ওই দিন দুপুরে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের সিনিয়ার কনসালটেন্ট ডাঃ মাহমুদা বেগম অস্ত্রপাচার (সির্জার) করে সাড়ে ৪ কেজি ওজনের এক কন্যা শিশুর জন্ম হয়। ওই বেডে দুই দিন চিকিৎসাধিন থাকার পর বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) দুপুর ১২ টার দিকে রক্তশুন্যতায় প্রসূতি রোজিনার মৃত্যু হয়।
এদিকে রোজিনার মৃত্যু জন্য চিকিৎসকের অবহেলাকে দায়ি করেন মৃতের পরিবার। চিকিৎসকের অবহেলায় প্রসূতির মৃত্যুর খবরে স্বজনরা হাসপাতাল চত্ত্বরে বিক্ষোভ করলে বিচারের আশ্বাস দিয়ে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। সদর হাসপাতালের সার্জারী বিভাগের প্রধান সিনিয়ার কনসালটেন্ট ডাঃ আব্দুল হাদিকে প্রধান করে এই কমিটিকে আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে।

মৃত প্রসূতির স্বামী আব্দুর রাজ্জাক জানান, চিকিৎসকের অবহেলার কারণেই তার স্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে। তার স্ত্রীর সিজার করার পরে সিনিয়ার কনসালটেন্ট ডাঃ মাহমুদা বেগমসহ কোন চিকিৎসক তার স্ত্রীর নিবির পর্যবেক্ষণ ও খোঁজ খবর নেয়নি। মূলত চিকিৎসকের অবহেলার কারণেই তার স্ত্রী মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্ঠান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন তিনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য