থানার ওসি'র বিরুদ্ধে চাঁদাবাজীর অভিযোগে সংবাদ সম্মেলনসংবাদ সম্মেলনঃ এবার দিনাজপুরের বীরগঞ্জ থানার ওসি শাকিলা পারভীনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজীর অভিযোগ করেছেন একই উপজেলার পুলিশী নির্যাতনের স্বীকার মো: আমিনুল ইসলাম।

বুধবার বিকেলে দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে উপরোক্ত অভিযোগ করেছেন বীরগঞ্জ উপজেলার দৌলতপুর গ্রামের নিরীহ যুবক মো: আমিনুল ইসলাম। তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেছেন ওসি শাকিলা পারভীন ১১ মার্চ রাতে সঙ্গীয় ফোর্সসহ আমিনুলের বাড়িতে যায় এবং আমিনুলকে একটি মোটর সাইকেল ফিরিয়ে দিতে বলে,কথা শুনে আমিনুল কিং কতর্ব্য বিমুঢ় হয়ে পড়ে। ওসি শাকিলা আমিনুলের বাড়িতে তাকে মারধোর শুরু করে এতে আমিনুলের স্ত্রী স্বামীকে রক্ষায় এগিয়ে এলে তাকেও মারধোর করা হয়েছে।

আমিনুল জানায়,স্ত্রী সিরাজুম মনিরারকে নির্যাতনের সময় কোলে তার ১৬ মাস বয়সী কন্যা মাসতুরা খানম আঘাত প্রাপ্ত হয়ে চিতকার করলেও ওসি সেদিকে কর্ণপাত করেনি। মিথ্যা মোটর বাইক চুরির অভিযোগে তাকে জোর করে থানায় নিয়ে যায় এবং ওসি শাকিলা ৮০ হাজার টাকা দাবী করে। ওসির নিদের্শে থানায় এসআই তৌগিদ ও অন্যান্য পুলিশ সদস্যরা তাকে বেধরোক মারপিট করেছে। আটকের বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তি এবং জনপ্রতিনিধিদের চাপের মুখে পুলিশ তাকে চেড়ে দিতে বাধ্য হয়।

সংবাদ সম্মেরনে আমিনুল জানান, তার বাড়িতে ২০১৬ সালের গরু চুরি ঘটনায় করা মামলার আসামী রফিকুল ইসলাম,মো: ময়না,মো: খলিলুর রহমান চক্রান্ত করে বীরগঞ্জ থানার ওসির মাধ্যমে হয়রানীমুলক মামলায় ফাঁসানোর চেষ্টা করছে। এধরনের নির্যাতন ও হয়রানী থেকে পরিত্রান পেতে আমিনুল পুলিশের উধ্বর্তন কর্মকর্তার আশু-হস্তক্ষেপ প্রত্যাশা করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন,মানবাধিকার কর্মী ও এপিপি এ্যাড: চাঁন মিয়া ও মো: জাকির হোসেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য