দিনাজপুরে ভেজাল প্রতিরোধে ক্যাবের স্বারকলিপি প্রদানদিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরে স্বাস্থ্যকর পরিবেশ সৃষ্টির লক্ষে খাদ্যে ভেজাল প্রতিরোধে ও নিরাপদ খাদ্যসহ বাজার পরিবীক্ষণ, ভোগ্য পণ্যে ও ন্যায মূল নিশ্চিত করনের দাবিতে জেলা প্রশাসককে স্বারকলিপি প্রদান করা হয়েছে।

কনজিউমারস্ এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) এই স্বারকলিপি প্রদান করেন। স্বারকলিপিতে ঝুঁকিপূর্ন অস্বাস্থ্যকর শিশু খাদ্যসহ প্রায় সব ধরনের খাদ্য উৎপাদন ও বিপননে যে দুবৃত্তায়ন ও দৌরাত্মপনা চলছে তা প্রতিরোধে জনস্বাস্থ্য রক্ষায় ৭দফা দাবি তুলে ধরা হয়।

জেলা প্রশাসক ও ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন অধিদপ্তরের জেলা সভাপতি মো. মাহমুদুল আলম স্বারকলিপি গ্রহন করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা ক্যাবের সভাপতি শাহ্-ই-মবিন-জিননাহ, সাধারন সম্পাদক মো. খয়রাত হুসেইন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. শফিকুল ইসলাম, নির্বাহী সদস্য ডা. মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ, এম এ কাফি সরকার, মাসউদ রানা, আইনুল হক, অর্থ সম্পাদক হাজেরা হাসান, সদস্য ডা. মু. চৌধুরী মোসাদ্দেকুল ইয়াজদানী, দিনাজপুরের জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান তারিকুন বেগম লাবন্য, সি ডি এ ম্যানেজার কামরুল হাসান, সমন্বয়কারী নাজমা আক্তার সহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিগণ।

এর পূর্বে বেলা ১২টায় (৬ মার্চ) আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, প্রায় সব ধরণে খাদ্যপণ্যের মধ্যে ভেজাল ও বিষাক্ত দ্রবাদি মিশিয়ে বাজারজাত করা হচ্ছে। এসব বিষাক্ত দ্রবাদির ছোবলে মানুষের শরীরের মূল অঙ্গ-প্রতঙ্গ যেমন- লিভার, হার্ট, কিডনি, ফুসফুস ধ্বংশ হয়ে যাচ্ছে। এমনকি এতে প্রাণঘাতী ক্যান্সার রোগের হার বৃদ্ধি পাচ্ছে।

দৈনন্দিন দূষিত খাদ্য খেয়ে কর্মক্ষমতাহীন ও পঙ্গুত্ব সারা দেশে এই দূরারোগ্য ব্যধির প্রভাব বেড়েই চলেছে এবং সর্বস্তরের ক্রেতা-ভোক্তারা আক্রান্ত হয়ে ধুকে ধুকে মৃত্যুবরণ করছেন। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে উৎপাদিত ভেজাল ও বিষাক্ত খাবর গ্রহনের ফলে আমাদের শিশুদের মস্তিক ও শারিরীক বিকাশ বাধাগ্রাস্ত হচ্ছে।

তারা বলেন, বাংলাদেশ সংবিধানের ১৫(ক) ১৮ (১) অনুচ্ছেদ অনুসারে জনস্বাস্থ্য রক্ষায় ভেজাল ও বিষাক্ত খাদ্য বন্ধ করা সরকারের সাংবিধানিক দায়িত্ব।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য